দৃষ্টিভঙ্গি বদলান, সমাজ বদলে যাবে

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

দৃষ্টিভঙ্গি বদলান, সমাজ বদলে যাবে

ছরোয়ার হোসাইন সুমন ৯:৫১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৯

print
দৃষ্টিভঙ্গি বদলান, সমাজ বদলে যাবে

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় লেখক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। যাকে নিয়ে আমরা সবাই আজো সমালোচনায় মুখর। নানা আলোচনা-সমালোচনার গণ্ডি পেরিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও লড়েছেন হিরো আলম। কিন্তু তাকে নিয়ে আমাদের নাক সিঁটকানো ব্যাপারটি কমেনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের মধ্যে হয়তো এমন একজনকেও খুঁজে পাওয়া দুরূহ, যিনি হিরো আলমকে চিনেন না। সেখানে কেউ তাকে মেনে নিচ্ছে আবার কেউ তাকে মেনে নিচ্ছে না। কেউ কাছে টানছে, কেউ টানছে না। তবে এই মানা না মানা কিংবা টানাটানিতে হিরো আলম দমে থাকেননি। হিরো আলম পাছে লোকের কথা শোনেননি। তিনি তার মতো করে লড়ে যাচ্ছেন। চানাচুর বিক্রেতা এই ছেলেটির ভাষ্কর্যও বানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী।

সব সমালোচনাকে পেছনে ফেলে এখনো এগিয়ে হিরো আলম। তাকে না থামিয়ে আমরা বরং উৎসাহিত করি। জীবনে বেঁচে থাকতে এতটা ভালোবাসা পাওয়ার সৌভাগ্য কতজনের হয় জানি না, যা পেয়েছে অনেক পেয়েছে হিরো আলম। আমি মনে করি, এত কম বয়সে এতটা কৃতিত্ব অর্জন করা মানুষের সংখ্যা আমাদের সমাজে খুবই কম। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো তার একাগ্রতা। যে যাই বলেছে, হিরো আলম তার জায়গা থেকে সরে দাঁড়ায়নি।

হিরো আলমকে ঘৃণা নয়, উৎসাহ-অনুপ্রেরণা আর সার্বিক সহযোগিতার মাধ্যমে তার পরিচর্যা করলে আমরা নতুন একজন ব্যক্তিত্বকে খুঁজে পাব বলে আমার বিশ্বাস। আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। আশপাশের মানুষের ব্যাপারে ইতিবাচক হতে হবে। ঘরে বাইরে আমরা নেগেটিভ দৃষ্টিভঙ্গির দাসত্ব করছি।

বদলগাছী, নওগাঁ