নদীকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে

ঢাকা, সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নদীকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে

অলোক আচার্য ৯:৪৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯

print
নদীকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে

নদ-নদী দখলকারী ব্যক্তিকে দেশের সব ধরনের নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা করেছেন মহামান্য হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দেশের কোনো ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়ারও অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। দুটোই সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত। কারণ নদীর সঙ্গে আমাদের জীবনধারার সুখ-দুঃখ জড়িত।

কিন্তু দখল, দূষণ, কর্তৃপক্ষের নজরদারির অভাবসহ নানা কারণে নদীমাতৃক দেশের আজ করুণ অবস্থা। নদীর দেশ বাংলাদেশের আজ নদীমাতৃক পরিচয়টাই হারিয়ে যেতে বসেছে। আমরা ক্রমেই মরুভূমির দেশের বৈশিষ্ট্যে এগিয়ে যাচ্ছি।
বিশেষজ্ঞদের মতে দেশের অভ্যন্তরে বহমান নদ-নদী ও খালসমূহ সুরক্ষায় কোনো পরিকল্পনায় না থাকায় নদীর ইতিহাস ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে। নদ-নদী খনন না করায় দেশের প্রধান নদীগুলোর অবস্থা মৃতপ্রায়। বর্ষায় যদিও নদীর অবস্থার সামান্য উন্নতি হয়। তবে সেই অবস্থা খুব অল্প সময়ই থাকে। নদ-নদী মানুষ ছাড়াও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বহু প্রাণী ও উদ্ভিদের আবাসস্থল রয়েছে নদীতে। নদী তার আপন সৌন্দর্য হারানোর সঙ্গে সঙ্গে এসব প্রাণী ও উদ্ভিদের আবাসস্থল বিলুপ্ত হচ্ছে। প্রভাব ফেলছে জীববৈচিত্র্যে। একের পর এক নদী শুকিয়ে যাওয়ার ফলে এর সঙ্গে জড়িত প্রত্যেকের জীবনধারণে ব্যাপক পরিবর্তন আসছে। যেসব নদী এখনো কোনো রকমে মানুষের অত্যাচারের ফলেও টিকে রয়েছে সেসব পলি পড়ার ফলে তলদেশ ভরাট হয়ে আছে। ফলে অল্প বৃষ্টিতেই দুকূল ভাসিয়ে সময়ে অসময়ে বন্যা হয়ে দুকূল ভাসিয়ে দিচ্ছে। মোটকথা নদীমাতৃক এই দেশে নদীর অস্তিত্বের সঙ্গে আমাদের অস্তিত্ব ওতোপ্রতোভাবে জড়িত। তাই নদীগুলোকে বাঁচাতে হবে।

অলোক আচার্য
পাবনা।