পঞ্চম শ্রেণি : আত্মবিশ্বাসে পরীক্ষা দেবে

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৪ পৌষ ১৪২৫

পঞ্চম শ্রেণি : আত্মবিশ্বাসে পরীক্ষা দেবে

বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

আজাদুর রহমান ৭:২৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৮

print
পঞ্চম শ্রেণি : আত্মবিশ্বাসে পরীক্ষা দেবে

আগামী ১৮ থেকে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত পঞ্চম শ্রেণির পাঁচটি বিষয়ের ওপর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীদের প্রতি আমার শুভকামনা থাকল। পরীক্ষার প্রস্তুতির সুবিধার্থে বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়টি নিয়ে কিছু পরামর্শ দেওয়া হলো। সঠিক পদ্ধতিতে পর্যাপ্ত অনুশীলন করলে বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়েও শতভাগ নম্বর পাওয়া যায়।

সঠিক মানবণ্টনটি পুনরায় দেখে নিই।
১. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর সংক্ষেপে উত্তরপত্রে লেখ।    (১৫টি*২ = ৩০)
২. সঠিক শব্দ দিয়ে শূন্যস্থান পূরণ কর।
(১২টি*১ = ১২)
৩. বাম পাশের সঙ্গে ডান পাশের মিল কর।
(৫টি*২ = ১০)
৪. যে কোনো ৮টি প্রশ্নের উত্তর দাও। (৮টি*৬ = ৪৮) এই ১০০ নম্বরের পরীক্ষা।
চূড়ান্ত সাজেশন (শুধু জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড কর্তৃক প্রণীত বইটি বারবার অনুশীলন করবে। ১, ২ ও ৩ নম্বর প্রশ্নের উত্তর লেখার জন্য সম্পূর্ণ পাঠ্যপুস্তক রিডিং পড়তে হবে।
পরীক্ষার সময় তোমাদের বেশ কিছু বিষয়ের প্রতি দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন। এই নির্দেশনা পরীক্ষায় ভালো ফল লাভে সহায়তা করবে।
তোমরা সারা বছর যথেষ্ট পড়ালেখা করেছো সেটির সঙ্গে মিলিয়ে নতুন সময় পরিকল্পনা করে সব বিষয় আবার একবার রিভিশন করবে।
তোমার টেবিলের সামনে পরীক্ষার রুটিন লিখে ঝুলিয়ে দাও।
প্রতিদিন রাত ১০টার মধ্যে বিছানায় ঘুমাতে যাবে।
পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে একটি ফোল্ডার কিনে তাতে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সংগ্রহ করবে (বড় স্কেল, ছোট স্কেল, দুটি পেনসিল, দুটি রাবার, ৪-৫টি কালো কালির কলম, দুটি নীল কালির কলম, জ্যামিতি বক্স, প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড)।
ফোল্ডারে থাকা কলমগুলো দিয়ে বাসায় অল্পবিস্তর লিখতে হবে, তাতে কলমে কালির প্রবাহ ঠিক থাকে।
পরীক্ষার ফরম্যাট অনুসারে ঘরে বসে পরীক্ষা দিয়ে প্রতিটি প্রশ্নের জন্য বরাদ্দ সময়ের মধ্যে উত্তর সম্পন্ন করার অনুশীলন করবে।
প্রশ্ন পেয়ে প্রথম ৫ মিনিট সেটি সম্পূর্ণ পড়ে ফেলবে এবং সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্নপত্রে চিহ্ন-দাগ দেবে কোন প্রশ্নগুলোর উত্তর উত্তরপত্রে লিখবে।
প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর পূর্বে করা পরিকল্পনা অনুসারে নির্ধারিত সময়ে শেষ করবে। প্রশ্নের উত্তর যে কয়টি করার নির্দেশ আছে, তা সব লেখার চেষ্টা করবে। সময় শেষ হওয়ার ৫ মিনিট আগেই লেখা শেষ করে রিভিশন করবে। তোমরা সবাই সফলকাম হও। এই কামনা করছি।

প্রভাষক
ডক্টর মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা।