লকডাউনে ঘাটে ঘাটে জনস্রোত

ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

লকডাউনে ঘাটে ঘাটে জনস্রোত

দক্ষিণবঙ্গ থেকে আসা যাত্রীর চাপ বেশি, পারাপারের অপেক্ষায় শত শত গাড়ি, বিনা কারণে বাইরে বের হয়ে ঢাকায় গ্রেফতার ৫৬২

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
🕐 ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২১

লকডাউনে ঘাটে ঘাটে জনস্রোত

কঠোর লকডাউন ষষ্ঠ দিনে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটের উভয় পাড়ে জনস্রোত ঠেকানো যাচ্ছে না। একই সঙ্গে ঢাকায় ফেরা ও দক্ষিণবঙ্গগামী ঘরমুখো যাত্রীর চাপ রয়েছে। এরই মধ্যে শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় শতাধিক ও বাংলাবাজার ঘাট এলাকায় ৪ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ২টার দিকে এ চিত্র দেখা যায়। তবে এর মধ্যে দক্ষিণবঙ্গ থেকে আসা ঢাকাগামী যাত্রীর চাপ বেশি। এদিকে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাইরে বের হয়ে রাজধানীতে গ্রেফতার হয়েছেন ৫৬২ জন। এছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২০৮ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৬১ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রীর চাপ বাড়তে থাকে। যাত্রীরা ছোট ছোট যানবাহনে, ব্যাটারিচালিত আটোরিকশা, প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেলে করে ভেঙে ভেঙে পায়ে হেঁটে ঢাকার উদ্দেশে কর্মস্থলের দিকে ছুটছেন। অনেকে মহাসড়ক দিয়ে মোটরসাইকেল, অটোরিকশা, থ্রি-হুইলারসহ বিভিন্ন যানবাহনে ভেঙে ভেঙে বাংলাবাজার ঘাট হয়ে ফেরিতে শিমুলিয়া ঘাটে আসেন। এক্ষেত্রে তাদেরকে পথে পথে পুলিশের বাধা মোকাবিলা করতে হচ্ছে। জরুরি পরিষেবার আওতায় পণ্যবাহী পরিবহন, অ্যাম্বুলেন্স ঘাটে আসলেই পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে ফেরিতে। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় বিভিন্ন যানবাহনে করে গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা। এতে গুনতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া। বিআইডব্লিউটিসি (মাওয়া) ব্যবস্থাপক মো. ফয়সাল হোসেন জানান, সকাল থেকে এই নৌরুটে উভয়পাড়ে যাত্রীর চাপ রয়েছে। পদ্মা নদীতে প্রচুর বাতাস ও স্রোত থাকায় ফেরি সীমিত চালানো হচ্ছে। নৌরুটে সকাল থেকে ৭টি ফেরি চলাচল করছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে কে-টাইপ ও মিডিয়াম ফেরি।

বিনা কারণে বাইরে বের হয়ে ঢাকায় গ্রেফতার ৫৬২

কঠোর বিধিনিষেধের ষষ্ঠদিনে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাইরে বের হয়ে রাজধানীতে গ্রেফতার হয়েছেন ৫৬২ জন। এছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২০৮ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৬১ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার (২৮ জুলাই) এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। বিকালে এ তথ্য জানান ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম।

তিনি বলেন, সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ডিএমপির ৮টি বিভাগের রমনা, লালবাগ, মতিঝিল, ওয়ারী, তেজগাঁও, মিরপুর, গুলশান ও উত্তরা এলাকায় সরকারি নিয়ম অমান্য করে বাইরে বের হওয়ায় ৫৬২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সড়কে যানবাহন নিয়ে বের হওয়ায় ঢাকা ডিএমপি পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ট্রাফিক বিভাগ ৪৯৭টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা করেছে। আর জরিমানা করা হয়েছে ১১ লাখ ৭৩ হাজার টাকা।

এডিসি ইফতেখায়রুল ইসলাম আরও বলেন, সরকার করোনা সংক্রমণ রোধে দুই সপ্তাহের কঠোর বিধিনিষেধ নিশ্চিতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে ষষ্ঠদিনেও রাজধানীজুড়ে সক্রিয় ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। রাজধানীতে অকারণে ও নানা অজুহাতে ঘর থেকে বের হওয়ায় ও লকডাউনেও প্রতিষ্ঠান খোলা রাখায় ২০৮ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৬১ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাইরে বের হয়ে গ্রেফতার হন ৫৫৫ জন। আর ২৩৬ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা করা হয় চার লাখ ৮৩ হাজার ৯৭৫ টাকা।

 
Electronic Paper