দুই-চার দিনের মধ্যেই করোনার ভ্যাকসিন আনার চুক্তি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২০ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

দুই-চার দিনের মধ্যেই করোনার ভ্যাকসিন আনার চুক্তি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ৮:৩৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২০

print
দুই-চার দিনের মধ্যেই করোনার ভ্যাকসিন আনার চুক্তি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্য ও প‌রিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে নিয়মিত সরকার যোগাযোগ করছে। দু চার দিনের মধ্যেই ভ্যাকসিন আনার চুক্তি সম্পাদন করা হবে। শনিবার দুপুরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানিকগঞ্জের গড়পাড়ার শুভ্র সেন্টারে জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ফুট প্যাকেজ ও হাইজিন প্যাকেট বিতরণ কালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সামনে শীতের সময় করোনার প্রকোপ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বজুড়ে করোনার প্রকোপ বেড়ে গেছে। যারা ভ্যাকসিন (টিকা) তৈরি করছে, আমরা তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করে যাচ্ছি। দুই-চার দিনের মধ্যেই একটি চুক্তি হবে ভ্যাকসিন আনার ব্যাপারে।

তিনি বলেন, ইতো মধ্যে বিশ্বেজুরা অনেক বেড়ে গেছে সংক্রমণ। তবে তুলনা মুলক ভাবে করোনায় আমাদের দেশে মৃত্যুর হার অনেক কম। আমেরিকাতে সোয়া দুই লক্ষ লোক মৃত্যুবরণ করেছে। আমরা একটি মৃত্যুও চাই না। আমরা অনেক ভালো আছি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেছি বিধায় আমরা ভালো আছি। আপনারা আর কিছুদিন ধৈর্য ধরতে হবে। এখনও দেশে থেকে করোনা ভাইরাস চলে যায়নি। তাই আমাদেরকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- জেলা প্রশাসক (ডিসি) এসএম ফেরদৌস, জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন, সেক্রেটারি ইসরাফিল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান প্রমুখ।

পরে এক হাজার ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে ফুড প্যাকেজ ও হাইজিন প্যাকেট বিতরণ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়েছে। এ পর্যন্ত ২১৩ দেশ ও অঞ্চলে এই মহামারী ছড়িয়ে পড়েছে। এটিকে বৈশ্বিক মহামারী ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৮ মার্চ প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

এরপর থেকে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৯২৩ জনের। এছাড়াও মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪ লাখ ৭ হাজার ৬৮৪ জনে।

এদিকে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ২৪ হাজার ১৪৫ জন। যা শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার এখন পর্যন্ত ৭৯ দশমিক ৫১ শতাংশ।