চালু হচ্ছে আরও ছয়টি ট্রেন

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৭ আশ্বিন ১৪২৭

চালু হচ্ছে আরও ছয়টি ট্রেন

নিজস্ব প্রতিবেদক ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০২০

print
চালু হচ্ছে আরও ছয়টি ট্রেন

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাবনার পাকশী বিভাগীয় কার্যালয়ের আওতাধীন ছয়টি আন্তনগর ট্রেন চালু হচ্ছে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘ ১৪৩ দিন বন্ধ থাকার পর আগামী শনিবার থেকে এই ছয়টি ট্রেন চালু হচ্ছে।

এ ট্রেনগুলোর টিকিট করতে হবে অনলাইনে। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) মো. নাসির উদ্দিন গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ট্রেনগুলো চালুর জন্য ইতিমধ্যে বিভিন্ন প্রস্তুতি শুরু হয়েছে বলেও জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৫ মার্চ পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের সব আন্তনগর, মেইল ও লোকাল ট্রেন চলাচল বন্ধ করা হয়। পরবর্তী সময়ে ১৫ জুন সাধারণ ছুটি প্রত্যাহারের পর ৩০ মে থেকে সীমিত পরিসরে ট্রেন চলাচল শুরু করে। প্রথম দফায় গত ৩১ মে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের আওতায় রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে বনলতা এক্সপ্রেস, লালমনিরহাট-ঢাকা-লালমনিরহাট রুটে লালমনি এক্সপ্রেস এবং ঢাকা-খুলনা রুটে চিত্রা এক্সপ্রেস চালু হয়।

দ্বিতীয় দফায় চালু হতে যাওয়া ট্রেনগুলো হচ্ছেÑরাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে পদ্মা এক্সপ্রেস, খুলনা-ঢাকা-খুলনা রুটে সুন্দরবন এক্সপ্রেস, পঞ্চগড়-ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে একতা এক্সপ্রেস, রাজশাহী-চিলাহাটি-রাজশাহী রুটে চিলাহাটি এক্সপ্রেস, খুলনা-চিলাহাটি-খুলনা রুটে সীমান্ত এক্সপ্রেস এবং গোপালগঞ্জের গোবরা-রাজশাহী-গোবরা রুটে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস।

পাকশী বিভাগীয় কার্যালয়ের যান্ত্রিক প্রকৌশলী (কেরেজ) মমতাজুল ইসলাম জানান, বন্ধের পর থেকে ট্রেনগুলো নিজ নিজ স্টেশনেই রয়েছে। দীর্ঘদিন চলাচল না করায় ট্রেনগুলোতে ধুলাবালু পড়েছে। যান্ত্রিক কিছু বিষয় রয়েছে। ফলে চলাচলের উপযোগী করতে কাজ শুরু করা হয়েছে। যার যার স্টেশনেই ট্রেনগুলো ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার ও যান্ত্রিক বিষয়গুলো ঠিক করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) মো. শাহীদুল ইসলাম বলেন, রেল ভবনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আরও ছয়টি ট্রেন চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিটি ট্রেনে ৫০ শতাংশ যাত্রী বহন করা হবে। শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে টিকিট সংগ্রহ করতে হবে অনলাইনের মাধ্যমে। স্ট্যান্ডিং টিকিট বিক্রি ও ট্রেনে খাবার সরবরাহ বন্ধ থাকবে।