কন্সট্রাকশনসহ তিন সেক্টরে বিদেশী শ্রমিক নেয়ার চিন্তা মালয়েশিয়ার

ঢাকা, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৭

কন্সট্রাকশনসহ তিন সেক্টরে বিদেশী শ্রমিক নেয়ার চিন্তা মালয়েশিয়ার

তোফাজ্জল হোসেন ৮:৪৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৮, ২০২০

print
কন্সট্রাকশনসহ তিন সেক্টরে বিদেশী শ্রমিক নেয়ার চিন্তা মালয়েশিয়ার

দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠানো বন্ধ রয়েছে। এই অবস্থায় কন্সট্রাকশন, বৃক্ষরোপন ও কৃষিখাতে বিদেশী শ্রমিক নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে মালয়েশিয়া সরকার। অন্য খাতে স্থানীয়দের নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

গত ৩০ জুলাই মালয়েশিয়ার উপ-মানবসম্পদ মন্ত্রী আভাং হাশিম এক সংবাদ সম্মেলনে আভাস দিয়েছেন সংবাদ মাধ্যমগুলোকে।

তিনি বলেন, এখন বিদেশি কর্মী নিয়োগ বন্ধ রয়েছে । সরকার পরের বছর নির্মাণ, কৃষি ও বৃক্ষরোপন খাতে বিদেশি কর্মী নিয়োগের অনুমতি দেয়ার বিষয়ে বিবেচনাধীন রয়েছে।

বিদেশী কর্মীর সংখ্যা হ্রাস করতে সরকারের গৃহিত উদ্যোগগুলো সর্ম্পকে ২৯ জুলাই লুবোক আন্টুর সংসদ সদস্য জুগাহ মুয়াংয়ের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছিলেন, ‘বিদেশী কর্মীদের উপর নির্ভরতা কমাতে সরকার এর আগে এই পদক্ষেপের কথা জানিয়েছিলো। বর্তমানে মানবসম্পদ মন্ত্রনালয়ে নিবন্ধিত দুই মিলিয়নেরও বেশী বিদেশী কর্মচারী রয়েছে। উল্লেখ্য ২০১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী কর্মী পাঠানোর উপর নিষেধাজ্ঞা (এসপিপিএ) দেয় দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্র নালয়।

এরপর থেকেই বৈধভাবে আর কোন শ্রমিকই যেতে পারেনি দেশটিতে।তারপরও দেশটির সরকারের সাথে কুটনৈতিকভাবে যোগাযোগ স্থাপন করে স্থগিত থাকা শ্রমবাজার পুনরায় খোলার বিষয়ে জোর তৎপরতা শুরু হয়। এই অবস্থায় মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী কুলসেগারান এমওইউ চুক্তি করার লক্ষ্য ঢাকায় আসেন। এরই মধ্যে খবর আসে তার দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা নিয়ে।

এ কারণে তিনি ঢাকায় চুক্তি না করেই দেশে ফিরে যান। দেশে ফিরেই তিনি মন্ত্রীত্ব হারাান। এরপর গঠিত হয় মালয়েশিয়ায় নতুন সরকার। এই অস্থিরতার মধ্যে আবার বিশ্বব্যাপি করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব শুরু হয়। মালয়েশিয়া সরকার কঠোর লকডাউন মানার কারণে করোনার প্রার্দুভাব কমতে থাকে। এরপরই গত ৩০ জুলাই দেশটির উপ মানবসম্পদ মন্ত্রী ৩ খাতে বিদেশী শ্রমিক নিয়োগের ঘোষনা দেন।

গতকাল মালয়েশিয়া থেকে ড.শংকর চন্দ্র পোদ্দার বলেন, কন্সট্রাকশন, বৃক্ষরোপন ও কৃষিখাতে (তিন সক্টরে) মালয়েশিয়া সরকারের আবারো নতুন করে বিদেশী শ্রমিক নেয়ার ঘোষনা দেয়ার কথা জানিয়ে বলেন, তাদের এই মুহুর্তে এসব সেক্টরে প্রচুর শ্রমিকের চাহিদা রয়েছে।

এদিকে মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় (কেডিএন) সংশ্লিষ্ট সুত্রগুলো জানিয়েছে, মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসী কি পরিমাণ রয়েছে তার সঠিক পরিসংখ্যান সরকারের কাছে নেই। তবে অভিবাসন বিভাগের অধীনে ডিটেনশন ক্যাম্পে ১৫ হাজার ৫৩১ জন অবৈধ অভিবাসী আটক রয়েছেন।