দাম বাড়ছে মসলার

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭

দাম বাড়ছে মসলার

নিজস্ব প্রতিবেদক ৯:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১০, ২০২০

print
দাম বাড়ছে মসলার

আর মাত্র ২০ দিন পর ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ। ঈদের দিন এগিয়ে আসায় রাজধানীসহ সারা দেশের মোকামগুলোতে বাড়তে শুরু করেছে লবঙ্গ, এলাচ ও দারুচিনির দাম। জিরা, আদা, জায়ফলসহ অন্যান্য মসলার দামও প্রতিদিন  একটু একটু বাড়ছে। একদিনের ব্যবধানে এলাচের দাম কেজিতে ৩০০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। লবঙ্গের দাম কেজিতে ২০০ টাকা এবং দারুচিনি ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দারুচিনির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকা। এলাচের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩২০০ থেকে ৩৬০০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ২৯০০ থেকে ৩২০০ টাকার মধ্যে। লবঙ্গ’র কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৭০০ থেকে ৮০০ টাকার মধ্যে। অবশ্য রোজার ঈদের আগে লবঙ্গের কেজি ১২০০ টাকা পর্যন্ত উঠেছিল।

ক্রেতা স্বার্থ সংরক্ষণে কাজ করা সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)  তাদের প্রতিবেদনে ক্রমেই মসলা পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কথা জানিয়েছে। টিসিবি জানায়, গত ৮ জুলাই এলাচ ও লবঙ্গের দাম বেড়েছে। এলাচের দাম ১ দশমিক ৫৬ শতাংশ বেড়ে ৩ হাজার থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। যা আগে ছিল ২ হাজার ৯০০ থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা। আর লবঙ্গের দাম ৩ দশমিক ২৩ শতাংশ বেড়ে ৭০০ থেকে ৯০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে, যা আগে ছিল ৭০০ থেকে ৮৫০ টাকা।

মসলা ব্যবসায়ীরা বলছেন, সারা বছর দেশে যে পরিমাণ মসলা বিক্রি হয়, তার অর্ধেক হয় কোরবানির ঈদের সময়ে। ঈদ এগিয়ে আসছে। পাইকারি বাজারে এলাচ, দারুচিনি ও লবঙ্গের দাম বেড়েছে। এলাচ ও লবঙ্গের কেজি প্রায় ৩০০ টাকা  বেশি দিয়ে কিনতে হয়েছে। দারুচিনির দাম কেজিতে বেশি পড়েছে ৫০ টাকা। ফলে আমরাও দাম বাড়িয়ে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি। তবে পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে সামনে মসলার দাম আরও বাড়তে পারে। কারণ গত কোরবানির ঈদের তুলনায় জিরা, পেঁয়াজ, রসুনের দাম এখন কিছুটা কম। ঈদকেন্দ্রিক কেনাকাটা শুরু হলে পাইকাররা সব ধরনের মসলার দাম বাড়িয়ে দেবেন।

ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, করোনা শুরুর পর থেকেই মসলার দামে বেশ অস্থিরতা বিরাজ করছে। তখন মসলার চাহিদা ও বিক্রি তুলনামূলক কম ছিল। ফলে দামও নাগালের মধ্যে ছিল। তবে  ঈদের আর ২০ দিনের মতো বাকি আছে। মানুষ এখন বাইরে বের হয়ে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে অংশ নিচ্ছে। এ কারণে মসলার দাম বাড়তে শুরু করেছে। প্রাথমিকভাবে এলাচ, লবঙ্গ ও দারুচিনির দাম বেড়েছে। ধীরে ধীরে অন্যান্য মসলার দামও বাড়বে।

সাধারণ ক্রেতারা বলছেন, করোনা পরিস্থিতিতে মানুষ নিত্যপণ্যসহ সার্বিক জটিলতার মধ্যে আছে। এর মধ্যে আবার বাড়ছে মসলার দাম। হঠাৎ মূল্য বৃদ্ধির পেছনে কোনো সিন্ডিকেট কাজ করছে কি-না তা সরকারের সংশ্লিষ্টদের নজর রাখা উচিত বলে মনে করছেন তারা।