বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন উপকূল

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ জুন ২০২০ | ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন উপকূল

নিজস্ব প্রতিবেদক ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ, মে ২২, ২০২০

print
বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন উপকূল

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে উপকূলীয় অঞ্চলের প্রায় এক কোটি গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় আছেন। সারারাতের ঝড়বৃষ্টির পর লাইন মেরামতের কাজে নেমেছে বিতরণ সংস্থার লোকেরা। কিছু কিছু অঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করা হলেও সেটার পরিমাণ কম। বড় বড় গাছ উপড়ে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গেছে। কোথাও কোথাও উপড়ে পড়েছে বা ভেঙে পড়েছে বিদ্যুতের খুঁটি।

পল্লী বিদ্যুৎ বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, উপকূলের অধিকাংশ জেলা বিদ্যুৎবিহীন। তবে ভোর থেকেই মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। বরিশাল, ভোলা, ঝালকাঠিসহ বেশ কয়েকটি অঞ্চলে কিছু কিছু করে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে। আরইবির গ্রাহকদের মধ্যে ঢাকার আশপাশ ছাড়া কমবেশি সবাই ক্ষতিগ্রস্ত। চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, যশোর, খুলনা, বরিশাল বেল্টে ক্ষতির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙেছে প্রায় ২০০, ছিঁড়েছে অসংখ্য বিদ্যুতের তার। পল্লী বিদ্যুৎ বোর্ডের দুই কোটি ৮৫ লাখ গ্রাহকের মধ্যে প্রায় ৮০ থেকে ৯০ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ আছে। 

এদিকে উপকূলীয় এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দিন জানান, আমাদের প্রায় ১২ লাখ গ্রাহকই ক্ষতিগ্রস্ত। সকাল থেকে আমাদের টিমগুলো বিভিন্ন অঞ্চলে কাজ শুরু করেছে। 

আস্তে আস্তে বিদ্যুৎ সরবরাহ ঠিক করা হচ্ছে। বরিশাল, যশোর, সাতক্ষীরা, বাগেরহাটে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করেছি। কিন্তু সেখানে আবার কিছু কিছু ফিডার চালু করা এখনও সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যে বেশিরভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। তবে প্রত্যন্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে বলে তিনি জানান।

এদিকে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের (পিজিসিবি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম কিবরিয়া জানান, আমাদের গ্রিডে এখন বিদ্যুৎ আছে। কিন্তু বিতরণ লাইনের সমস্যার কারণে তারা বিদ্যুৎ নিতে পারছে না। এর বাইরে পিডিবিরও বেশ কিছু লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তারাও সকাল থেকে কাজ শুরু করেছে। তবে দ্রুত সরবরাহ ঠিক হবে।

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ঝড় শুরু হওয়ার পর থেকে বিদ্যুৎ সেবা পাচ্ছেন তারা। এছাড়া বিদ্যুৎ না থাকায় মোবাইল নেটওয়ার্কও পাওয়া যাচ্ছে না ওই উপজেলায়। এছাড়া বরগুনার উপকূলীয় এলাকাগুলোতেও বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে মানুষ। পাশাপাশি বন্ধ রয়েছে মোবাইল নেটওয়ার্কও।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, লক্ষ্মীপুর, যশোর, বরগুনা এবং নোয়াখালীর বিভিন্ন জেলায় প্রায় ৫০ লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ সেবা পাচ্ছেন না। এছাড়া গত বুধবার সকাল থেকে উপকূলীয় অনেকে এলাকায়ই বিদ্যুৎ সেবার আওতার বাইরে আছে।