আমরা স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে কাজ করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা, বুধবার, ৩ জুন ২০২০ | ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

আমরা স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে কাজ করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ৮:৪৭ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ০১, ২০২০

print
আমরা স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে কাজ করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমরা স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে কাজ করছি। বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে ভেন্টিলেটর যুক্ত করা হচ্ছে। এরমধ্যে বেশ কয়েকটি হাসপাতাল প্রস্তুত করা হয়েছে। কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালকে আমরা প্রস্তুত করেছি। এখানে ভেন্টিলেটর সুবিধাসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থাকবে। ঢাকার বাইরেও বিভিন্ন হাসপাতাল প্রস্তুত করা হয়েছে।

বুধবার (০১ এপ্রিল) দুপুরে মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এমআইএস মিলনায়তনে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনেকাংশে মানা হচ্ছে না। ঢাকায়, পুরান ঢাকায়, ঢাকার আশপাশে, বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, ইউনিয়নগুলোতে ঘোরাফেরা করছে। বাজারেও ঘোরাফেরা করছে। টি-স্টলে বসছে। এই জিনিসটা মোটেও কাম্য নয়। এতে সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে দেবে। আশা করছি, এই কাজ থেকে বিরত থাকবেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা বিভিন্ন জায়গায় টেস্টিং সুবিধা চালু করেছি। ঢাকার মধ্যে‌ রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) ছাড়াও আইপিএইচ, ঢাকা শিশু হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে টেস্টিং সুবিধা চালু করা হয়েছে। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও চালু করা হবে। ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহ, রংপুর, রাজশাহীত মেডিক্যাল কলেজে পরীক্ষা শুরু করবে। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি মেডিক্যাল কলেজে টেস্টিং সুবিধা চালু করা হবে। শুধু ফেসিলিটি থাকলেই চলবে না। সন্দেহভাজন রোগীর হাসপাতালে গিয়ে টেস্ট করাতে হবে। আপনারা প্রতিনিয়ত হাসপাতালে আসুন। বেশি বেশি করে পরীক্ষা করুন।

তিনি বলেন, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এরমধ্য থেকে তিনজনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। একইসঙ্গে আক্রান্ত একজনের মৃত্যু হয়েছে। একজন সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে এক হাজার ৭৫৯টি। এ থেকে এখন পর্যন্ত ৫৪ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস (কভিড-১) শনাক্ত হয়েছে। পাশাপাশি বর্তমানে আইসোলেশন আছেন ৭৩ জন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এমআইএস বিভাগের পরিচালক ডা. মো. হাবিবুর রহমান ও আইপিএইচের ভাইরোলজিস্ট বিশেষজ্ঞ ডা. খন্দকার মাহবুবা জামিল