খেয়াল রাখবেন, মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০ | ১৭ চৈত্র ১৪২৬

খেয়াল রাখবেন, মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ১২:২১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০

print
খেয়াল রাখবেন, মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঢাকায় যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা মনোযোগ দিয়ে কাজ করবেন। মশার উপদ্রব কমাবেন। মশা ক্ষুদ্র হলেও অনেক শক্তিশালী এটা মাথায় রাখতে হবে। খেয়াল রাখবেন মশা যেন নিয়ন্ত্রণে আসে। তা না হলে মশা কিন্তু আপনার ভোট খেয়ে ফেলবে। বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কার্যালয়ের শাপলা হলে দুই মেয়রকে শপথবাক্য পাঠ করানোর পরা এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কাজের ক্ষেত্রে কোনোরকম দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না। এর পরেও যদি কেউ দুর্নীতি করে, কোনো মুখ চাওয়া-চাওয়ি হবে না। সে যেই হোক, আমি কিন্তু কোনো ছাড় দেবে না।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু নিয়ে সমস্যা। এখন থেকেই এই মশা নিয়ন্ত্রণে সবাইকে ব্যবস্থা নিতে হবে। সেদিকেও আপনাদের (নতুন মেয়র ও কাউন্সিলরদের) দৃষ্টি দিতে হবে। সেদিকে আপনাদেরও বিশেষভাবে নজর দিতে হবে। যেন সঠিক ভাবে এটা (মশা নিয়ন্ত্রণে ওষুধ প্রয়োগসহ প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ) করা হয়।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় সরকারগুলোকে আমরা আরও শক্তিশালী করতে চাই। সেখানে পর্যাপ্ত পরিমাণ বাজেট দেয়া হচ্ছে। উন্নয়নের জন্য আমরা শুধু শহর নয় গ্রামের উন্নয়ন করতে চাই। এজন্য আমরা আলাদা আলাদা বাজেট ঘোষণা করছি। একটা কথা মনে রাখবেন, কেউ আপনাকে ভোট দিয়েছে, আবার কেউ আপনাকে ভোট দেয় নাই। যখন আপনি নির্বাচিত হয়েছেন তখন মনে করবেন আপনি সকলের প্রতিনিধি। এটাই গণতন্ত্রের নিয়ম। এটা মাথায় রেখে সকলের উন্নয়নে আপনাকে কাজ করতে হবে। কেউ যেন বঞ্চিত না হয়।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা ঢাকার উন্নয়নে মেগা প্রকল্প গ্রহণ করেছি। সেই প্রকল্প আপনারা বাস্তবায়ন করবেন। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে গিয়ে কেউ যেন দুর্নীতি না করেন। কারণ আমরা দুর্নীতি, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। কেউ যদি দুর্নীতি করেন তাকে কিন্তু আমি ছাড়ব না। আজ যে শপথ গ্রহণ করলেন সেই শপথ অনুযায়ী আপনি চলবেন।

করোনো ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকারের প্রস্তুতি সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাঝেমধ্যে একেকটা ঝামেলা আসে। এখন যেমন করোনা ভাইরাস দেখা দিয়েছে। এর থেকে কীভাবে বাংলাদেশকে মুক্ত করা যায় তার জন্য যথাযথ পদক্ষেপ আমরা নিচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, এখনও আমাদের দেশে করোনা ভাইরাস আসেনি। কিন্তু এরকম যদি দেখা যায় সে জন্য আমরা ডেডিকেডেট একটা হাসপাতাল আলাদা করে দিয়েছি। সেখানে নার্স, ডাক্তার যারা সার্ভিস দেবে তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া, তাদের জন্য পোষাক, তাদের সুরক্ষার ব্যবস্থা, সেগুলো করছি। সঙ্গে সঙ্গে যে নির্দেশনাগুলো যাচ্ছে সবাইকে তা মেনে চলতে হবে।

প্যারেড গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিতব্য মুজিববর্ষের আনুষ্ঠানিকভাবে উদযাপনের জন্য নবনির্বাচিত মেয়র, কাউন্সিলর ও দলীয় নেতাকর্মীদের দাওয়াত দেন শেখ হাসিনা।

এর আগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) নব-নির্বাচিত মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামকে শপথবাক্য পাঠ করান প্রধানমন্ত্রী।

এরপর স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম দুই সিটি করপোরেশনের সাধারণ ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলরদের শপথবাক্য পাঠ করান।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস ও আতিকুল ইসলাম পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য মেয়র নির্বাচিত হন।

তবে আজ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হলেও আইনি বাধ্যবাধকতার কারণে নির্বাচিত দুই মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্ব পেতে মে মাসের মধ্য সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। বর্তমান যেসব কাউন্সিলর পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা নেই।