পূর্ণতা পেয়েছে বইমেলা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০ | ১৭ চৈত্র ১৪২৬

পূর্ণতা পেয়েছে বইমেলা

মৃন্ময় মাসুদ ১০:২০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

print
পূর্ণতা পেয়েছে বইমেলা

মধ্যভাগে এসে পূর্ণতা পেয়েছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের পদচারণায় চিরচেনা রূপ পেয়েছে বাঙালির এই প্রাণের মেলা। রোববার কর্মদিবসেও মেলায় ছিল বইপ্রেমীদের উপচেপড়া ভিড়। এদিন বিকাল ৩টায় মেলার গেট খুলতে না খুলতেই সমাগম ঘটতে থাকে বইপ্রেমীদের। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে গম গম করতে থাকে মেলা প্রাঙ্গণ।

মালিবাগ থেকে বইমেলায় এসেছেন শামীম আহমেদ। দু-হাত ভরে বই কিনেছেন তিনি। এই তালিকায় আছে- বঙ্গবন্ধুর ‘আমার দেখা নয়াচীন’, ‘শতবর্ষে সুভাষ মুখোপাধ্যায় : বাংলাদেশের শ্রদ্ধাঞ্জলি’, ‘চাণক্য নীতিশাস্ত্র’, ‘শ্রেষ্ঠ মিসির আলি’, ‘নক্ষত্র নিভে যায়’সহ একরাশ বই। তিনি বলেন, মেলায় এসে খুব ভালো লাগছে। অনেকগুলো বই কিনেছি, আরও কিছু কেনার ইচ্ছা আছে।

এদিকে বেচাকেনা ভালো হওয়ায় খুশি প্রকাশক-বিক্রেতারা। তাম্রলিপি প্রকাশনীর এক কর্মকর্তা জানান, মূলত গত শুক্রবার থেকে মেলা পূর্ণতা পেয়েছে। এখন পাঠক-দর্শনার্থী আসছেন প্রচুর। আর যারা আসছেন প্রায় সবাই বই কিনছেন।

সার্বিক বিষয়ে মেলা পরিচালনা পরিষদের সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ বলেন, আমরা মেলার মাঝামাঝি সময়ে আছি। সত্যিকার অর্থে এখন বইমেলার জমজমাট রূপ দেখা যাচ্ছে। আমরা আশা করছি, এ ধারা শেষ পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

এবারের বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে লেখক দেবব্রত নীলের গল্পগ্রন্থ ‘বুলবুলিতে ধান খেয়েছে’। বইটি প্রকাশ করেছে বইঘর প্রকাশনী। বইটি পাওয়া যাচ্ছে বইমেলার ৮৬৪ নম্বর স্টলে। এটি লেখকের সপ্তম বই। ছোটদের জন্য প্রকাশিত এই বইয়ে রয়েছে ১০টি গল্প।

এতে স্থান পেয়েছে- দাসত্বের গল্প, পরাজিতের কান্না, বিদ্রোহী আর বিজয়ের উপাখ্যান। এখানে চরিত্রগুলো সাধারণ হলেও তাদের কথাগুলো অসাধারণ হয়ে উঠেছে প্রতিটি গল্পে।