বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন স্তরে ভর্তি পরীক্ষা

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৫ ফাল্গুন ১৪২৬

বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন স্তরে ভর্তি পরীক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক ১০:৪২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০

print
বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন স্তরে ভর্তি পরীক্ষা

সমন্বিত পরীক্ষা পদ্ধতিতে কেন্দ্রীয়ভাবে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এ তিন স্তরে আলাদাভাবে নেওয়া হবে ভর্তি পরীক্ষা। এ জন্য পৃথক পৃথক কেন্দ্রীয় কমিটি কাজ করবে। আগামী সেপ্টেম্বরে ভর্তির আবেদন কার্যক্রম শুরু হতে পারে বলে ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে।

ইউজিসির চেয়ারম্যান কাজী শহীদুল্লাহ জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় ভর্তি কার্যক্রম নিয়ে কোনো বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিমত পোষণ করেনি। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে, একটি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি চার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ বেশ কয়েকজন উপাচার্যকে ডাকা হয়েছে। আশা করি সেই সভায় সব আশঙ্কা কেটে যাবে।

প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভা করে চারটি বিশ্ববিদ্যালয় সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানা গেছে। ইউজিসি চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, এ প্রক্রিয়ার বাইরে কেউ থাকবে না।

জানা গেছে, চলতি বছরের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ থেকেই সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে একযোগে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে। তবে এক্ষেত্রে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়, বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এবং কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ে আলাদাভাবে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে কলা, বিজ্ঞান ও বাণিজ্য শাখার জন্য পৃথক পৃথক তিনটি কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটি গঠন করা হবে। এই তিন শাখায় তিন দিন আলাদাভাবে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে।

প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয় তাদের নিজ নিজ প্রয়োজনীয় শর্ত সংযোজন করে পৃথক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে। নতুন করে আর পরীক্ষা না নিয়ে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় পাওয়া স্কোরকে বিবেচনা করেই শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়েই ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্র থাকবে। শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দ অনুযায়ী অভিন্ন প্রশ্নে পছন্দ করা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে পারবে বলে জানা গেছে।

কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধ্যের অতিরিক্ত আবেদন জমা পড়লে মেধাক্রমানুযায়ী নিকটতম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। বিশেষায়িত বিভাগগুলো যেমন- স্থাপত্য, চারুকলা ও সংগীত তাদের প্রয়োজনমতো শুধু ব্যবহারিক পরীক্ষা নিতে পারবে। তবে সেক্ষেত্রেও কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষার স্কোর সংযুক্ত করেই মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।

প্রচলিত পদ্ধতিতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘুরে ঘুরে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয়। এতে তাদের নানা ধরনের ভোগান্তি কমাতে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি গ্রহণের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে চলতি বছর থেকে।