‘চরের মানুষের ভাগ্যন্নোয়নে অথরিটি থাকা জরুরি’

ঢাকা, শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৬

‘চরের মানুষের ভাগ্যন্নোয়নে অথরিটি থাকা জরুরি’

তোফাজ্জল হোসেন ৮:০০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২০

print
‘চরের মানুষের ভাগ্যন্নোয়নে অথরিটি থাকা জরুরি’

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া বলেছেন, চরের উন্নয়নে সরকার অর্থ বরাদ্দ করলেও অথরিটির অভাবে সে অর্থ খরচ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই চরের মানুষের ভাগ্যন্নয়নে একটি চর অথরিটি থাকা জরুরি।

আজ শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে অক্সফাম আয়োজিত ‘জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ বিপদাপন্ন জনগোষ্ঠির ঝুঁকি হ্রাসকল্পে বন্যা বীমার পে-আউট চেক হস্তান্তর’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

গাইবান্ধা জেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ৭৫০ টি পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতার জন্য এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গ্রীন ডেলটা ইনস্যুরেন্স কো: লি: কর্তৃক ২৬ লক্ষ ৭২ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়। একটি এনজিও (এসকেএস )এর তত্ত্বাবধনে এ চেক ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নিকট পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়।
ডেপুটি স্পিকারের উপস্থিতিতে এসকে এস এর নির্বাহী প্রধান রাসেল আহমেদ লিটনের নিকট এ চেকটি হস্তান্তর করেন গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কো: লি: এর এমডি ফারজানা হক। এসময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহা পরিচালক মো: মোহসীন ,অক্সফাম, এসকেএস, গ্রীন ডেলটা ইনস্যুরেন্স, ইন্টার ন্যাশনাল ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট এর প্রতিনিধসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বিভিন্ন দাতা সংস্থা ও বেসরকারী সংস্থা ও কোম্পানির উদ্যেশে ডেপুটি স্পিকার বলেন, গ্রীন ডেল্টার মত অন্যান্য ইনস্যুরেন্স কো: এর উচিত এ ধরনের মহত উদ্যোগ নেয়া।

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রীর সাফল্যের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাস্তববাদী ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ সরকার ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বাংলাদেশের উদ্যোগের স্বীকৃতি স্বরূপ পৃথিবীর জাতিসংঘ কর্তৃক ‘চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ’ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে শেখ হাসিনা প্রমাণ করেছেন যে জলবায়ু পরিবর্তনে বিনিয়োগ সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন অর্জনে সহায়ক। তবে এ অর্জনে শুধু সরকারের একার সদইচ্ছা থাকলে হবে না বেসরকারীভাবেও সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়াতে হবে। প্রান্তিক কৃষক, প্রতিবন্ধীসহ সমাজের সকল স্তরের মানুষের অংশগ্রহনে এ অর্জন আরও সহজতর হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

অক্সফাম এর কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. দীপংকর দত্তের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: মোহসীন, গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স এর এমডি ফারজানা হক, এসকেএস এর প্রধান নির্বাহী রাসেল আহমেদ লিটন, এনজিও প্রতিনিধি, গাইবান্ধা থেকে আগত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের প্রতিনিধ প্রমুখ।