গণ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাক: ডা. জাফরুল্লাহ

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

গণ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাক: ডা. জাফরুল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২০

print
গণ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাক: ডা. জাফরুল্লাহ

সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে (গবি) চলমান বিভিন্ন সমস্যার সমাধান না করে প্রয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চোধুরী। সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের তালাবদ্ধ করে রেখেছেন শিক্ষার্থীরা।

 

 

মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে ছাত্র সংসদের মেয়াদ বৃদ্ধি ও বাজেট সংক্রান্ত সভায় যোগদানের পূর্বে শিক্ষার্থীরা চলমান সমস্যার সমাধানের দাবি জানালে তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, দুপুর ১২টায় ক্যাম্পাসে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সঙ্গে বৈঠক করতে আসেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি (ভিপি) জুয়েল রানা তার কাছে উপাচার্যের বৈধতা, বিবিএ ও ফিজিওথেরাপি বিভাগের সমস্যা, কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের বাজেট, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রসপেক্টাস না মানাসহ বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব চাইলে তিনি বলেন, ‘তোমরা সরকারের কাছে যাও।’ তিনি সাধারণ শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবি পূরণ করতে পারেননি, শিক্ষার্থীদের গালাগালি করেছেন।

এ সময় ভিপি জুয়েল রানা ডা. জাফরুল্লাহকে বলেন, আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্যা নিয়ে নাটক শুরু করছেন। শুধুমাত্র আপনার জন্য বৈধ উপাচার্য, ব্যবসায় প্রশাসন ও ফিজিওথেরাপি বিভাগের সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। আপনি আজ শিক্ষার্থীদের সাথে বসে কোনো সমাধান না দেয়া পর্যন্ত আটক থাকবেন।’ আমাদের ন্যায্য দাবি আপনি কেন পূরণ করবেন না। আপনাকে আমরা মানি না। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য আমি তিনটা মামলা খেয়েছি। আপনারা অল্প খরচে শিক্ষা দেন। কিন্তু আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার টাকাও মাফ হয় না।

জানা যায়, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী পূর্ব নির্ধারিত কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাধারণ সভায় যোগদানের উদ্দেশ্যে দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন। কিন্তু তার আগেই ছাত্র সংসদ, সাধারণ ছাত্র পরিষদ সহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্যার কথা তুলে ধরে সভা বয়কট করে

ভিপি জুয়েল রানা বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি লিখিতভাবে তাকে দেয়া হয়েছে। দাবি না মানা হলে তালা খোলা হবে না।
এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ৪১৭ নং কক্ষে তালা লাগিয়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা।