সংকট কাটছে নার্স সমস্যার

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সংকট কাটছে নার্স সমস্যার

নিজস্ব প্রতিবেদক ৯:৪৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৯

print
সংকট কাটছে নার্স সমস্যার

অবশেষে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের উদ্ভূত জটিলতা নিরসন হতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে নয় সদস্যবিশিষ্ট আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রইস উদ্দিনকে সভাপতি করে গঠিত কমিটিতে জনপ্রশাসন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও আইন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের সদস্য করা হয়েছে।

গত রোববার জনপ্রশাসন সচিব ফয়েজ আহম্মদের সভাপতিত্বে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের দুই সচিবের উপস্থিতিতে প্রায় তিন ঘণ্টাব্যাপী রুদ্ধদ্বার বেঠক শেষে এ কমিটি গঠন করা হয়।

জানা যায়, নার্সিং ও মেডিকেল টেকনোলজিসহ সহযোগী স্বাস্থ্য শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় জটিলতা নিরসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে উদ্যোগ নেওয়ার নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন সচিব ওই সভা আহ্বান করেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, সবার কাছে গ্রহণযোগ্য সমস্যার সমাধান খুঁজে বের করতে এ কমিটি কাজ করবে। দ্রুতই এ কমিটি সুপারিশমালা পেশ করবে।

জানা গেছে, নার্সিং ও মেডিকেল টেকনোলজি কোর্স নিয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও কারিগরি বোর্ডের মধ্যে সৃষ্ট জটিলতা নিয়ে উচ্চ আদালতে একাধিক মামলা চলছে। এ মামলাগুলো নিষ্পত্তি করতে হলে আইনগত দিকগুলো যাচাই-বাছাই করে দেখতে হবে। এ কারণেই আইন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, অ্যালোকেশন অব বিজনেস অনুযায়ী, নার্সিং ও সহযোগী স্বাস্থ্য শিক্ষা সম্পর্কিত কার্যক্রম স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত। কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল টেকনালজি ও ডিপ্লোমা ইন পেশেন্ট কেয়ার টেকনালজি কোর্স চালু করায় এবং এ বিষয়ে একাধিক মামলা হওয়ায় চিকিৎসা শিক্ষায় সামগ্রিকভাবে অস্থিরতার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে ভবিষ্যতে এর গুণগতমান নিয়ে প্রশ্ন ওঠার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

নার্সিং ও মেডিকেল টেকনোলজিসহ সহযোগী স্বাস্থ্য শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের মধ্যে উদ্ভূত এ সংকট নিরসনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গত ২৩ অক্টোবর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব সাক্ষাৎ করেন।