সরকারি গাছ কর্তনের অভিযোগ

ঢাকা, সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২ | ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

সরকারি গাছ কর্তনের অভিযোগ

দুর্গাপুর (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি
🕐 ৪:৪৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০২২

সরকারি গাছ কর্তনের অভিযোগ

নেত্রকোণার দুর্গাপুর-শ্যামগঞ্জ সড়কের শান্তিপুর এলাকায় সিএন্ডবি’র রাস্তার মেহগনি জাতের ৯টি গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় হাসিম মোল্লা (৫২) বিরুদ্ধে।

উপজেলার কাকৈরগড়া ইউনিয়নের মৃত মহর আলীর পুত্র হাসিম মোল্লা। স্থানীয় গাছ ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করে দেয়া ওই ৯টি গাছ গত বুধবার কেটে ফেলেন বলে জানা গেছে।

সিএন্ডবি’র জায়গার গাছ কেটে বিক্রি করার বিষয়টি প্রকাশ্যে উঠে আসলে হাসিম মোল্লা অনেকটা গাঁ ডাকা দিয়েছেন বলে জানান স্থানীয়রা। আশপাশের লোকজন গাছ কেটে ফেলার বিষয়টি নিয়ে নিষেধ করলে তিনি অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করেছেন বলেও জানা গেছে। ‘গাছ লাগিয়েছি, আমিই গাছ কাটব’ এখানে বাঁধা দেয়ার কে বলে স্থানীয় বেশকজনকে হুমকিও দিয়েছে হাসিম মোল্লা।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে শান্তিপুর এলাকার দুর্গাপুর-শ্যামগঞ্জ সড়কের পাশেই সিএন্ডবি’র জায়গায় সাড়িবদ্ধভাবে লাগানো মেহগনি গাছগুলির গুড়া কেটে মাটিতে ফেলে রাখা হয়েছে। বেশক’টি গাছের টুকরো করে রাস্তার উপর অংশে রাখা হয়েছে। ৩টি গাছ পুকুরের পানিতে ফেলে রেখেছে। ওই গাছ কাটার বিষয়টি সিএন্ডবি’র কর্তৃপক্ষের কারও সাথে কোন কথা বলেনি হাসিম মোল্লা।

তিনি ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে ওই ৯টি গাছ ২লাখ টাকায় স্থানীয় পাইকারদের কাছে বিক্রি করেছেন। ওয়ার্ড পর্যায়ে সরকার দলের স্বঘোষিত নেতা বলে তিনি দাবী করছেন। উপরস্থ অনেক কর্তা ব্যক্তি রয়েছে। কিছুই করতে পারবে না আমার এমন দাম্ভিক কথপোকথন রয়েছে মুঠোফোনে। স্থানীয় ব্যক্তিদের সাথে যথেষ্ট দুরত্ব রয়েছে তার। অন্যায় করে প্রায় সময়ই পার পেয়ে যান তিনি। এখানে গাছ কাটলে পারমিশন লাগবে, প্রশ্নই আসেনা পারমিশনের।

সিএন্ডবি’র জায়গার গাছ কাটার অভিযোগের বিষয়ে হাসিম মোল্লা জানান, সিএন্ডবির লোকজন ঘটনাস্থলে এসেছিলেন। যেসকল গাছ কাটা হয়েছে, সে গুলো যাতে সড়ানো না হয়। আমি নিজে গাছগুলি লাগিয়েছি, গাছগুলি বড় হয়েছে। বিদ্যুতের খুঁটির সমস্যা হচ্ছে বিধায় গাছ কেটে ফেলেছি। আমার তো জেল ফাঁস হবেনা। আমি নিজস্ব কিছু লোকের প্রতিহিংসার শিকার।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মো. খোয়াজুর রহমান বলেন, সিএন্ডবি’র জায়গাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগের হওয়ায় আমাদের আওতার বাইরে। তবে মূল রাস্তা থেকে ১০ মিটার মানে ৩৩ ফুট জায়গার ভিতরে কোন ধরণের স্থাপনা নির্মাণ ও সংরক্ষিত গাছপালা কাটা সম্পূর্ন নিষেধ। তবে সিএন্ডবির রাস্তার গাছ কাটার বিষয়টি কোনভাবেই ঠিক হয়নি। এটি একটি গুরুতর অন্যায়। সরকারি সম্পদ রক্ষা করা সকলের দায়িত্ব রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) মোহাম্মদ রাজীব উল আহসান জানান, গাছ কাটার বিষয়টি আমি শুনে সংশ্লিষ্ট ইউপি নায়েবকে কাটা গাছগুলি সিস করতে বলেছি। স্থানীয় চৌকিদার দিয়ে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে বলেও তিনি জানান।

 
Electronic Paper