ছোটদের ঈদ পোশাক

ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ছোটদের ঈদ পোশাক

হালরং ডেস্ক ৩:৩০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০১৯

print
ছোটদের ঈদ পোশাক

নতুন জামাকাপড় ছাড়া কিন্তু কি জমে? বিশেষ করে ছোটদের তো নয়ই। শপিংমলগুলোতে ছোট্টদের পোশাকের বিশাল সম্ভার রেখেছে কেনাকাটা শুরুর আগে থেকেই। বাজার ঘুরে জানা গেল, সব ধরনের পোশকই রয়েছে শিশুদের ঈদ কালেকশনে।

এবারের কোরবানি ঈদে ছেলেদের জন্য বেশি কালেকশন রেখেছে পাঞ্জাবি, পায়জামা, শার্ট, ফতুয়া, শেরওয়ানি ইত্যাদি এবং মেয়েদের জন্য রয়েছে ফ্রক, স্কার্ট, সালোয়ার, কামিজ, ফতুয়া, লেহেঙ্গা, লং ড্রেস পালাজ্জো সহ হাল ফ্যাশনের নানা সম্ভার। ডিজাইন আর প্যাটার্নে বৈচিত্র্য ছোটদের পোশাকগুলোয় নিয়ে এসেছে নতুনত্ব।

ছোটদের পোশাকের সবচেয়ে আকর্ষণীয় অংশ হচ্ছে এর রঙ। উৎসবভিত্তিক আবহ ফুটিয়ে তুলতে ছোটদের পোশাকগুলোয় মূলত উজ্জ্বল রং ব্যবহার করা হয়েছে। লাল, ম্যাজেন্টা, পার্পেল, নীল, কমলা ও সবুজ রঙের নানা আঙ্গিকের পোশাকের সম্ভার রেখেছে ফ্যাশন হাউসগুলো।

ছোটদের পোশাক কেনার ক্ষেত্রে সুন্দর বা ঝলমলের চেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন রস বেল ফ্যাশন হাউসের স্বত্বাধিকারী মুন্নি জামান। তিনি বলেন, রং ও নকশার দিকে না তাকিয়ে যে পোশাক পরে শিশু আরাম বোধ করবে সে পোশাকই কেনা উচিত। কারণ অনেক সময় পোশাকের রং থেকেও শিশুর ত্বকের ক্ষতি হতে পারে, সে বিষয়টিও খেয়াল রাখতে হবে। কিংবা পোশাক পরে শিশু আরাম বোধ না করলে তার মন খারাপের সম্ভাবনাও থাকে।

দেশীয় বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস বড়দের পাশাপাশি ছোটদের জন্য এনেছে পাঞ্জাবি, শার্ট, টি-শার্ট, পোলো শার্ট, সালোয়ার-কামিজ, টপস, ফ্রক, লেহেঙ্গা ইত্যাদি। বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস ভিন্ন ভিন্ন থিমে তাদের পোশাকের নকশা করেছে। এছাড়া প্রায় সব ফ্যাশন হাউসই প্রধানত সুতি বা আরামদায়ক কাপড়কে প্রাধান্য দিয়ে পোশাক বানিয়েছে। কারণ এবারের ঈদ হবে মাঝ বর্ষায়। সেই সঙ্গে ভ্যাপসা গরমও থাকবে। তাই স্টাইলের পাশাপাশি পোশাকে গুরুত্ব পাচ্ছে আরামের বিষয়টিও। তাই এ বছর ছোটদের ঈদের পোশাকে সুতি, লিনেন, ভয়েল কাপড়ের ওপর বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। মোটিভ হিসেবে এলোমেলো নকশার বদলে চলছে সাদাসিধে নকশা। গরম এড়াতে ভারী নকশার চেয়ে প্রিন্টের ওপর বেশি জোর দেওয়া হয়েছে। প্রিন্টের মধ্যে বড়দের মতো ছোটদের পোশাকেও প্রাধান্য পাচ্ছে ফ্লাওয়ার মোটিভ। সঙ্গে যোগ হয়েছে লতা-পাতা, পাখি, জীবজন্তুসহ প্রকৃতির নানা অনুষঙ্গ। এছাড়াও থাকছে বর্ণমালা, কার্টুনসহ মজার সব প্রিন্ট।

ফ্যাশন ডিজাইনার সৌমিক দাস জানান, আবহাওয়া বিবেচনায় এবার শিশুদের পোশাকে বেশি ব্যবহার হয়েছে ভয়েল, বেক্সি ভয়েল, কটন, জর্জেট ধরনের কাপড়।

আরামদায়ক করে তুলতে মেয়ে শিশুদের পোশাকে বডি এবং হাতার প্যাটার্নে নানা ধরনের কাট এবং লেয়ার ব্যবহার হয়েছে। আরাম তো থাকবেই, তাই বলে ঈদের পোশাক একেবারে সাদামাটা হলে তো ছোটদের মন ভরবে না।