চুরি যাওয়া নবজাতকের লাশ পুকুরে, বাবা গ্রেফতার

ঢাকা, শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

চুরি যাওয়া নবজাতকের লাশ পুকুরে, বাবা গ্রেফতার

খোলা কাগজ ডেস্ক ৪:৩৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০২০

print
চুরি যাওয়া নবজাতকের লাশ পুকুরে, বাবা গ্রেফতার

বাগেরহাটে ঘুমন্ত মায়ের পাশ থেকে নবজাতক চুরির পর, পুকুর থেকে লাশ উদ্ধারের ঘটনায় অভিযোগের তীর এখন বাবার দিকে। এ ঘটনায় বাবা ও চাচাসহ ৩ জনকে আটক করা হলেও বাবাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তবে কী কারণে এ নৃশংসতা তা এখনও অজানা।

চাঞ্চল্যকর ১৭ দিন বয়সী নবজাতক সোহানা হত্যার ঘটনায় ১৮ নভেম্বর, বুধবার রাতে বাবা সুজন খানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও নবজাতকের চাচা রিপন খান ও ফুপা হাসিব শেখকে আটক করা হয়েছে।

১৯ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার দুপুরে গাবতলা গ্রামে হত্যাকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার। হত্যার মূল রহস্য উদঘাটনে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়।

সন্তান হত্যার ঘটনায় বাবাসহ পরিবারের কেউ জড়িত থাকলে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন মা শান্তা আক্তার।

রোববার গভীর রাতে মোরেলগঞ্জের গাবতলা গ্রামের সুজন খান ও শান্তা আক্তার দম্পতির সাথে ঘুমন্ত অবস্থায় বিছানা থেকে নিখোঁজ হয় ১৭ দিনের শিশু সোহানা। ১৮ নভেম্বর, বুধবার সকালে নিহত শিশুর দাদা আলী হোসেন ফজরের নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে পুকুরে মরদেহ দেখতে পান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। এলাকাবাসী এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আটক করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

সোমবার রাতে নবজাতক চুরির ঘটনায় শিশুটির দাদা মো. আলী হোসেন খান বাদী অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে মোরেলগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন।