ওয়াসা এমডিকে হাই কোর্টের সতর্কতা

ঢাকা, সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৬ আশ্বিন ১৪২৭

ওয়াসা এমডিকে হাই কোর্টের সতর্কতা

নিজস্ব প্রতিবেদক ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০

print
ওয়াসা এমডিকে হাই কোর্টের সতর্কতা

ওয়াসার এমডি তাকসিম এম খান ইচ্ছাকৃতভাবে বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণ বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া রায় প্রতিপালন করছেন না বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। তাই বুড়িগঙ্গা দূষণ বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বাস্তবায়ন না করায় ওয়াসার এমডিকে সতর্ক করেছেন আদালত। পাশাপাশি আগামী এক মাসের মধ্যে আদালতে প্রকৃত রায় বাস্তবায়নের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গতকাল সোমবার বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এ ছাড়াও মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ১৮ অক্টোবর দিন নির্ধারণ করেন আদালত।

এদিন রিটকারীদের পক্ষে শুনানি করেন মনজিল মোরসেদ। পরিবেশ অধিদফতরের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আমাতুল করিম এবং ওয়াসার এমডির পক্ষে ছিলেন উম্মে সালমা।

এদিকে গতকাল শুনানিতে ওয়াসার এমডির পক্ষে আরও একটি প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করা হয়। কিন্তু আদালত তা গ্রহণ না করে ওয়াসার এমডিকে সতর্ক করেন এবং বারবার সময় নিয়ে রায় বাস্তবায়ন করায় তার প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করার বিষয়টি উল্লেখ করেন। আদেশে আরও উল্লেখ করা হয়, ওয়াসার এমডি ইচ্ছাকৃতভাবে রায় প্রতিপালন করছেন না এবং বারবার প্রতিবেদন দাখিলের মাধ্যমে সময় ক্ষেপণ করছেন।

শুনানিতে মনজিল মোরসেদ আদালতকে বলেন, রায়ের পরে ৯ বছর অতিক্রান্ত হলেও টালবাহানা করে রায় বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না। যার কারণে বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণ বন্ধ হচ্ছে না এবং ওয়াসা তাদের দায়িত্ব বার বার পালনে ব্যর্থ হয়েছে।

এছাড়াও একই আদালতে ২০১৪ সালে দায়ের হওয়া আরেকটি রিটের আদেশে হাইকোর্টের একই বেঞ্চ পরিবেশ অধিদফতরের ঢাকা বিভাগের পরিচালক, ঢাকার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার, কেরানীগঞ্জ থানার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে দুই সপ্তাহের মধ্যে বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিণ পাশে নদী ও নদী তীরে ময়লা/আবর্জনা/বর্জ্য ফেলা ও স্তূপ করা বন্ধের নির্দেশ দেন।

একই সঙ্গে যে ময়লা আবর্জনা/বর্জ্য ফেলা হয়েছে তা অপসারণ করে ১৫ দিনের মধ্যে আদেশ বাস্তবায়নের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত। এছাড়াও মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর দিন নির্ধারণ করে দেন।