তিনজনকে রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে আজ

ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০ আশ্বিন ১৪২৭

মেজর সিনহা হত্যা

তিনজনকে রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে আজ

মোঃ নেজাম উদ্দিন, কক্সবাজার ৯:৩৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২০

print
তিনজনকে রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে আজ

মেজর (অব.) সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যা মামলার রিমান্ডের আদেশ পাওয়া ৩ আসামিকে এখনো তদন্তকারী কর্মকর্তার হেফাজতে নেওয়া হয়নি। তবে জেলে থাকা ৪ আসামিকে কক্সবাজার জেলা কারাগার ফটকে দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে রোববার (৯ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে আসামিদের এ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। কক্সবাজার জেলা কারাগারের সুপার মোহাম্মদ মোকাম্মেল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গত শনিবার ৮ আগস্ট তাদেরকে প্রথম দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তবে এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তারা এখন কিছু বলতে নারাজ। তারা বলছেন আমাদের তদন্তের স্বার্থে এখন কিছু বলা যাচ্ছে না।

এদিকে যাদেরকে দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তারা হলেন- পুলিশের বহিস্কৃত কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া। গত ৮ আগস্ট ৪জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ ও বাকী ৩ জনের প্রত্যেককে ৭দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করার বিচারকের আদেশ আদালত থেকে কক্সবাজার জেলা কারাগারে পৌঁছানো হয়।

সুত্র আরো জানিয়েছে, রিমান্ডের আদেশ পাওয়া ৩ আসামিকে এখনো তদন্তকারী কর্মকর্তার হেফাজতে নেওয়া হয়নি। ৪ জনের প্রত্যেককে ২ দিন করে জিজ্ঞাসাবাদ রোববার শেষ হলেই রিমান্ড মঞ্জুর করা ৩ আসামিকে সোমবার (১০ আগস্ট) কারাগার থেকে তদন্তকারী কর্মকর্তার হেফাজতে নিয়ে রিমান্ড করা হবে বলে আভাস পাওয়া গেছে। যে ৩ জনকে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে, তারা হলো- বরখাস্ত হওয়া টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহারকৃত ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী (বরখাস্ত) ও এসআই নন্দলাল রক্ষিত (বরখাস্ত)।

টেকনাফের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত (আদালত নম্বর-৩) এর বিচারক মোহাঃ হেলাল উদ্দিন কক্সবাজার জেলা পুলিশের বহিস্কৃত ৭ আসামির মধ্যে প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলী ও নন্দলাল রক্ষিতকে ৭দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর ও বাকী ৪ আসামিকে ২ দিন করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার আদেশ দেন। আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) এর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত গত ৬ আগস্ট এ আদেশ দেন।

আদালত থেকে রিমান্ড ও জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেওয়া প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলী, এসআই নন্দলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়াকে ইতোমধ্যে চাকুরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

গত ৩১ জুলাই খুন হওয়া মেজর (অব.) সিনহা মোঃ রাশেদ খানের বড়বোন ও মোঃ শামসুজ্জামানের সহধর্মিণী শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস (৪২) বাদী হয়ে চাকুরি থেকে বরখাস্ত হওয়া প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলীসহ ৯ জনকে আসামি করে টেকনাফ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ৫ আগস্ট সকালে এই হত্যা মামলাটি দায়ের করেন। যার টেকনাফ থানার মামলা নম্বর : ৯/২০২০, সিআর মামলা নম্বর : ৯৪/২০২০ ইংরেজি (টেকনাফ)।