সরকারি সেতুতে গেট বানাচ্ছেন আ.লীগ নেতা

ঢাকা, শুক্রবার, ৭ আগস্ট ২০২০ | ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭

সরকারি সেতুতে গেট বানাচ্ছেন আ.লীগ নেতা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ১০:১৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০

print
সরকারি সেতুতে গেট বানাচ্ছেন আ.লীগ নেতা

শরীয়তপুরে নড়িয়া উপজেলার ভূমখাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে চাকধ গ্রামে বাস করেন আওয়ামী লীগ নেতা মাহবুব হোসেন সেলিম ব্যাপারী। 

তার বাড়ির উত্তর পাশে রয়েছে সরকারি খাল। খালের পাশে নড়িয়া-সুরেশ্বর সড়ক। ওই গ্রামবাসীর কথা চিন্তা করে সরকারি অর্থ খরচ করে খালের ওপর একটি সেতু তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু সেই সেতুটি সেলিম একাই ব্যবহার করছেন। তিনি সেতুটিতে বিলাসবহুল পাকা গেট করছেন।

এলাকাবাসী ও সেতুটির নামফলক থেকে জানা যায়, ২০০৬-২০০৭ অর্থবছরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের সেতু নির্মাণ প্রকল্পে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ১১ লাখ ৬৯ হাজার ৩২ টাকা ব্যয়ে নড়িয়া উপজেলার ভূমখাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চাকধ গ্রামে সেলিম ব্যাপারীর বাড়ির কাছেই এই সেতু তৈরি করা হয়। সেতুর দৈর্ঘ্য ১৫ মিটার অর্থাৎ ৪৫ ফুট। প্রকল্পটির নাম রাখা হয় ‘সেলিম ব্যাপারীর বাড়ির নিকট খালের ওপর সেতু নির্মাণ’।

গতকাল রোববার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চাকধ গ্রামটিতে সরকারি অর্থে দুটি সেতু ও পাঁচটি কাঠের পোল তৈরি করা হয়েছে। সেলিম ব্যাপারীর বাড়ি এই গ্রামেই এবং খালের পাশে। সেতুটির শেষ ভাগে অর্থাৎ সেলিমের বাড়ি যে পাশে সেদিকে সেতুর ওপর ইট, সিমেন্ট ও রড দিয়ে একটি গেট করা হচ্ছে। যার প্রায় ৯০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। সেতুর নামফলকটি একটি গাছের গুঁড়ি দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মাহবুব হোসেন সেলিম ব্যাপারী। তিনি এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি।

এ ব্যাপারে মাহবুব হোসেন সেলিম ব্যাপারী বলেন, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরকার আমাকে খালের ওপর এই ব্রিজটি করে দিয়েছে। এই ব্রিজ দিয়ে কেউ যাতায়াত করে না, শুধু আমার পরিবারের লোক যাতায়াত করে। তাই ব্রিজের পাশে ও বাড়ির সামনে গেট করছি।

এ বিষয়ে ভূমখাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডিএম শাহ্জাহান সিরাজ বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের আইনে পাকা গেট করার নিয়ম নেই। সরকারি ব্রিজে গেট করবে কেন? যারা গেট করে তারা পাগল ছাড়া কিছু না।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) নড়িয়া উপজেলা প্রকৌশলী শাহাবুদ্দিন বলেন, সরকারি সেতুর উপর গেট করা যাবে না। আমরা পরিদর্শনে যাবো, ঘটনা সত্য হলে ব্যবস্থা নেব।

এ ব্যাপারে নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জয়ন্তী রুপা রায় বলেন, সরকারি সেতুর ওপর পাকা গেটের কথা শুনলাম। সেতুর ওপর গেট করা যাবে না। উপজেলা ইঞ্জিনিয়ারকে দিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।