করোনায় রোগ প্রতিরোধে ইমিউনিটি পিঠা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট ২০২০ | ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

করোনায় রোগ প্রতিরোধে ইমিউনিটি পিঠা

বি এম ফারুক, যশোর ১০:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ০২, ২০২০

print
করোনায় রোগ প্রতিরোধে ইমিউনিটি পিঠা

যশোরে স্বে”ছাসেবী সংগঠন আইডিয়া’র কর্মীরা করোনাকালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে তৈরি করেছেন ‘ইমিউনিটি পিঠা’। পুষ্টিবিদদের পরামর্শে আইডিয়ার কর্মীরা পরিশ্রম আর গবেষণার মাধ্যমে এই পিঠা’র রেসিপি তৈরি করেছেন। যাতে ডুমুর, কালোজিরা, আদা, অলিভ অয়েল, চিকেন মিটসহ ১২টি ঔষধি মসলার সমন্বয় রয়েছে। পুষ্টিবিদরাও এটিকে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

আইডিয়া সমাজকল্যাণ সংস্থার প্রধান উপদেষ্টা যশোর সরকারি এমএম কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হামিদুল হক শাহীন জানান, সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাস মহামারি রূপ নিয়েছে। বর্তমান বাস্তবতা হচ্ছে এর কোনো ওষুধ বা ভ্যাক্সিন নেই। কাজেই ইমিউনিটি বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নেই। এ কারণেই আইডিয়ার কর্মীরা পুষ্টি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে এই পিঠা তৈরি করেছেন। ইমিউনিটি পিঠার উপাদানগুলোর মধ্যে রয়েছেÑ ডুমুর, কালোজিরা, আদা, রসুন, এলাচ, মেথি, লবঙ্গ, গোলমরিচ, দারুচিনি, আমলকি, তুলসি পাতা ও সজিনার পাতা ও এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল। যার সবগুলাই আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি বহুবিধ উপকার সাধন করে।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) পুষ্টি ও খাদ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রভাষক শুভাশীষ দাস শুভ বলেন, প্রাচীনকাল থেকেই প্রমাণিত যে নিয়মিত শরীর চর্চা ও সাধারণ সুষম খাবারের পাশাপাশি কিছু মসলা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে শুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। যেমন কালোজিরা, আদা, রসুন, হলুদ, লবঙ্গ, গোলমরিচ। এছাড়াও ডুমুর, আমলকি, তুলসি পাতা ও সজিনার পাতা এই ব্যপারে শুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আইডিয়া পিঠা পার্ক উদ্ভাবিত ইমিউনিটি পিঠা এই জায়গাতেই কাজ করেছে।

যশোর ল্যাব এইড’র নিউট্রিশন ও ডায়েট কনসালটেন্ট পুষ্টিবিদ মো. মো. শাহারিয়া করিম জসি বলেন, কোভিড-১৯ এ সবচেয়ে বেশি সমস্যা শ্বাসকষ্টে। কালিজিরা শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা কমায়। ক্ষতিকর জীবাণু নিধন থেকে শুরু করে শরীরের কোষ ও কলার বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে দৈনিক ৫ গ্রাম মেথি, ১-১.৫ গ্রাম দারুচিনি, ২-৫ গ্রাম কাচা রসুন, ২-৩ গ্রাম আদা খাওয়া উচিত। এ সকল মসলায় রয়েছে বিভিন্ন প্রকার antioxidants যেমন; কালোজিরায় আছে Phenolic amides, Flavonoids, আদায় আছে Gingerol, লবঙ্গে রয়েছে ঊঁমবহড়ষ যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। পাশাপাশি এই সকল উপাদান সামগ্রিকভাবে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ তথা Lifestyle Disease নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে শারীরিক সক্ষমতা বৃদ্ধি করে। আইডিয়া পিঠা পার্ক কর্তৃক উদ্ভাবিত, আয়ুর্বেদিক উপাদান ও বিভিন্ন মসলার সমন্বয়ে স্বাস্থ্য সম্মতভাবে তৈরি এই পিঠা সাধারণ মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে মানুষকে বিভিন্ন প্রকার রোগ ব্যাধি থেকে রক্ষা পেতে সহায়ক হবে।

এ ব্যাপারে আইডিয়া পিঠা পার্কের সমন্বয়ক সোমা খান বলেন, পিঠা পার্ক উদ্ভাবিত ইমিউনিটি পিঠা’য় ব্যবহৃত উপাদানগুলো শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে যে বিস্ময়কর ভূমিকা রাখে তা অতীতেও বিভিন্ন গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে। সুতরাং আমরা বিশ^াস করি আইডিয়া ইমিউনিটি পিঠা খাদ্য হিসেবে গ্রহণে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা অনেক বৃদ্ধি পাবে যা করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবেলায় সহায়ক হবে। আইডিয়া পিঠা পার্কের পেজে (https://www.facebook.com/ideapithapark/) এ সম্পর্কে আরও জানতে পারবেন।

সহকারী অধ্যাপক হামিদুল হক শাহীন আরও জানান, আমাদের পূর্ব পুরুষদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যেমন ছিল, সে তুলনায় আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক কম। কারণ তারা ছিলেন পরিশ্রমী এবং প্রাকৃতিক খাদ্যাভ্যাসে অভ্যস্ত ছিলেন। ইমিউনিটি পিঠার সব উপাদানই প্রাকৃতিক। সব ধর্মগ্রন্থেই এই পিঠায় ব্যবহৃত উপাদান সম্পর্কে ইঙ্গিত দেওয়া আছে। বাস্তবিক এই প্রেক্ষাপটেই ইমিউনিটি পিঠার চিন্তা মাথায় আসে।

তিনি উল্লেখ করেন, শুধু পিঠাই নয়; আইডিয়া বিভিন্ন সামাজিক কর্মতৎপরতা নিয়ে মানুষের পাশে রয়েছে। করোনার শুরুতে মাস জুড়ে ৩৯২টি সবধরনের সহযোগিতা করেছে। এছাড়া প্রতিবছর ঈদে শিশুদের বস্ত্র প্রদান, শিক্ষা উপকরণ বিতরণ, শীতার্তদের শীতবস্ত্র প্রদান গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণ, বাড়িতে বাড়িতে গাছ লাগানোসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকা- করে থাকে।