বকশীগঞ্জে সংস্কার হয়নি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০ | ১ শ্রাবণ ১৪২৭

বকশীগঞ্জে সংস্কার হয়নি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট

বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি ১:৫০ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০২০

print
 বকশীগঞ্জে সংস্কার হয়নি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় গত বছরের জুলাই মাসে বয়ে যাওয়া ভয়াবহ বন্যায় গ্রামীণ রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হলেও অধিকাংশ রাস্তাগুলো সংস্কারের উদ্যোগ নেই। এসব রাস্তা সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় কোন বরাদ্দ না থাকায় টিআর, কাবিখা, ইজিপিপি প্রকল্পের ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন দফতরকে। ফলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সাত মাস পরেও সিংহভাগ রাস্তা সংস্কার করা সম্ভব হচ্ছে না।

এ কারণে মানুষের দুর্ভোগ বেড়েই চলেছে। আগামী বন্যা বা বর্ষার আগে মানুষের চলাচল করা জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলো সংস্কার করা না হলে দুর্ভোগের শেষ থাকবে না মানুষের। তবে বকশীগঞ্জ ইউএনও আ.স.ম. জামশেদ খোন্দকারের উদ্যোগে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তাটি সংস্কার করেছেন এলাকার মানুষ। এছাড়াও ঘুঘড়াকান্দি ব্রিজ থেকে উজান কলকিহারা গ্রামের রাস্তাটিও বন্যায় সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়ে গেছে।

অপরদিকে বগারচর, নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের কয়েকটি রাস্তা বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হলেও এখন পর্যন্ত সংস্কার বা পুনঃনির্মাণের কোন ব্যবস্থা করা হয়নি। বন্যা পরবর্তীতে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা সংস্কারের জন্য পর্যাপ্ত বরাদ্দ না থাকায় রাস্তাগুলো সংস্কার করা সম্ভব হচ্ছে না। রাস্তাগুলো সময়মত মেরামত না হওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছে স্ব স্ব এলাকার মানুষ। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা সংস্কার করা না হলে বর্ষা মৌসুমে চলাচলে আরো ভোগান্তি বাড়বে বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ। তারা আগামী বন্যার আগেই বিশেষ বরাদ্দ দিয়ে রাস্তাগুলো সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) হাসান মাহবুব খান জানান, গত বছরের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাগুলো টিআর, কাবিখা এবং অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি প্রকল্পের মাধ্যমে মেরামত করা হচ্ছে। কিন্তু সব রাস্তা এই বরাদ্দ দিয়ে সংস্কার করা সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য বিশেষ বরাদ্দ পাওয়া গেলে তা দ্রুত কাজ করা যেতে পারে।