সড়কে নিত্য দুর্ভোগ

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৬

সড়কে নিত্য দুর্ভোগ

শরিফুল ইসলাম বাবলু, নড়াইল ৮:২৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২০

print
সড়কে নিত্য দুর্ভোগ

নড়াইল-গোবরা-ফুলতলা-খুলনা সড়কের ২৮ কিলোমিটার রাস্তা, একটি সেতু ও ১৯টি কালভার্টের কার্যাদেশ সাত মাস অতিবাহিত হলেও কাজ নামমাত্র শুরু হয়েছে। এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ সাত কিলোমিটার রাস্তা খুঁড়ে বালু দেওয়া, মিশ্রিত বালু ও খোয়া দেওয়া এবং কয়েকটি পয়েন্টে রাস্তার পাশের মাটি দেওয়ার কাজ চলছে। এখানে রাস্তার পাশে শক্ত মাটি দেওয়ার কথা থাকলেও নরম কাদা দেওয়া হচ্ছে। একটি সেতু ও ১৯টি কালভার্টের কাজ খোঁড়াখুঁড়ি পর্যায়ে রয়েছে। এক কিলোমিটারের বেশি সংযোগ সড়কের জমি এখনও অধিগ্রহণ করা হয়নি।

রাস্তা চওড়া করার জন্য নড়াইল-থেকে গোবরা প্রায় ছয় কিলোমিটার জায়গায় জেলা পরিষদের লাগানো প্রায় ৫০০ গাছ এবং রাস্তার পাশের বৈদ্যুতিক খুঁটিও অপসারণ করা হয়নি। এ কারণে সড়কটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বড় বড় গর্ত, ধুলো-বালি, অসহনীয় ঝাকুনি এখন যাত্রীদের নিত্যসঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মইনুদ্দীন বাঁশি জেভি ফার্মের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী সৈয়দ ইমতিয়াজ হোসেন রতন বলেন, নানাবিধ কারণে এ কাজ শুরু করতে একটু দেরি হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি যথাসময়ে কাজ শেষ করার জন্য। নরম কাদা-মাটি দেওয়ার ব্যাপারে বলেন, রাস্তা ঠেকাতে কিছু জায়গায় বাধ্য হয়ে প্রথম লেয়ারে নরম মাটি দেওয়া হচ্ছে। পরে শক্ত মাটি দেওয়া হবে। এছাড়া সেতু করতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। দুই পাশে এখনও জায়গা অধিগ্রহন না করায় মালামাল রাখতে সমস্যা পোহাতে হচ্ছে। বিষয়টি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীকে জানানো হয়েছে।

নড়াইল সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৗশলী ফরিদ উদ্দীন বলেন, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন না হওয়ার আশঙ্কার কারণে আরও এক বছর সময় বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া বরাদ্দও কম পাওয়া গিয়েছে। গত অর্থ বছরে ১০ কোটি টাকা পাওয়া গেছে। এ অর্থ বছরের জন্য আরও ৪০ কোটি টাকার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।