সেতু নয় যেন মরণ ফাঁদ

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সেতু নয় যেন মরণ ফাঁদ

কুমারখালী (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি ৩:২৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯

print
সেতু নয় যেন মরণ ফাঁদ

কুষ্টিয়ার কুমারখালী-কালীতলা ভায়া-খোকসা-পাংশা সড়কে অবস্থিত শহরতলীর মহেন্দ্রপুর অভিমুখী প্রধান সড়কের গড়ের মাঠ ব্রিজটি যেন মৃত্যুর ফাঁদে পরিণত হয়েছে। যে কোন সময় ব্রিজটি ভেঙে পড়তে পারে বলে শঙ্কা স্থানীয়দের।

তবে ব্রিজটি ভেঙে পড়লে শহরের সঙ্গে উপজেলার জগন্নাথপুর, শিলাইদহ ও সদকী ইউনিয়নসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলা খোকসা, মাছপাড়া, পাংশা ও রাজবাড়ীর উত্তর এলাকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বৃটিশ আমলে নির্মিত লোহার তৈরী গড়ের মাঠ ব্রিজটি ভগ্নদশায় পড়ে আছে। বার বার টেন্ডার হলেও কাজ বাস্তবায়ন হয়নি। ব্রিজটি নির্মাণে নকশার ত্রুটির জন্য কোন ঠিকাদার/প্রতিষ্ঠান কাজে আগ্রহী হচ্ছে না, আবার আগ্রহী হলেও কাজ না করে সরে যাচ্ছে। ব্রিজে প্রতিদিনই ছোট বড় দুর্ঘটনা ঘটে চলেছে। ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন হাজারো মানুষ।

গড়ের মাঠ ব্রিজ সংলগ্ন খামারী পলাশ জানান, আমি প্রায় ২৪ ঘণ্টা এখানে থাকি। সংস্কারের অভাবে যুগ যুগ ধরে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে আছে ব্রিজটি।

প্রতিনিয়ত ছোট বড় দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে। নিত্য প্রয়োজনের তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ও যানবহন চলাচল করছে। এই ব্রিজটি সংস্কার করা এখন সময়ের দাবি বলে জানান অটো ভ্যান চালক রফিক।

উপজেলা প্রকৌশলী মাহাবুব আলম জানান, ব্রিজটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ইতিমধ্যে ভাড়ীযান চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। তিনবার টেন্ডার আহ্বান করা হলেও কোন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান টেন্ডারে অংশ গ্রহণ করেনি। এখন চতুর্থ টেন্ডারের অপেক্ষায়।

৮০ ফুট লম্বা এবং ১৮ ফুট চওড়া ব্রিজটির নির্মাণ ব্যয় বরাদ্দ আছে দুই কোটি ৩ লাখ টাকা। কিন্তু পিসি গার্ডার ক্যাটাগরিতে ব্রিজটি নির্মাণের কারণে ছোট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সাহস পাচ্ছে না, আবার বড় প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসছে না এত অল্প অর্থে পিসি গার্ডার ক্যাটাগরির কাজের জন্য। ফলে বছরের পর বছর ব্রিজ নির্মান কাজটি ঝুলে আছে।