হাসপাতালের পিয়ন যখন সার্জন

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬

হাসপাতালের পিয়ন যখন সার্জন

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি ১২:৩১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৯, ২০১৯

print
হাসপাতালের পিয়ন যখন সার্জন

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর হাসপাতালের এক পিয়ন জিহাদ সার্জন সেজে বিভিন্ন রোগীদের অপারেশন করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দীর্ঘদিন ধরে একজন পিয়ন বিভিন্ন ক্লিনিকে সার্জন হিসাবে অপারেশন করে আসলেও কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেননি।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা ক্লিনিকের মালিকদের সঙ্গে যোগসাজস করে জিহাদ সার্জন হিসাবে অপারেশন করে আসছে। 

গত রোববার উপজেলার গড়ুরা পালপাড়া গ্রামের আরশেদ আলীর প্রসূতি মেয়ে কহিনুর প্রসব ব্যাথা নিয়ে পার্শ্ববর্তী প্রাগপুর বাজারের আল্লারদান ক্লিনিকে ভর্তি হন।

ওইদিনই ক্লিনিক মালিক পাপিয়া দৌলতপুর হাসপাতালের পিয়ন জিহাদকে ডেকে নিয়ে কহিনুরের সিজারিয়ান অপারেশন করায়। এরপর কহিনুরের রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় তাকে দ্রুত কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, হাসপাতালে পৌছানোর আগেই সে মারা গেছে। নিহত গৃহবধূর স্বজনরা জানান, জিহাদ ও ক্লিনিক মালিক পাপিয়া গোপনে পাঁচ লাখ টাকা দিয়ে মিমাংশার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. অরবিন্দ পাল জানান, বিষয়টি জানার পর তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। বিষয়টি প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।