ছয় লাখ মানুষের ছয় চিকিৎসক

ঢাকা, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯ | ৮ বৈশাখ ১৪২৬

ছয় লাখ মানুষের ছয় চিকিৎসক

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি ২:২৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

print
ছয় লাখ মানুষের ছয় চিকিৎসক

যশোরের মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবা কার্যক্রম খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে। একদিকে চিকিৎসক সংকট, প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য উপকরণের অভাব, অন্যদিকে চিকিৎসক-কর্মচারীদের অবহেলার কারণে বঞ্চিত হচ্ছেন রোগীরা। ভুক্তভোগী এসব রোগী ও স্বজনরা চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হয়ে বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং দালালদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন।

১৭টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার অন্তর্গত ২৬১টি গ্রামে অন্তত ছয় লাখ জনসংখ্যা রয়েছে। এ বিশাল জনগোষ্ঠির একমাত্র স্বাস্থ্যসেবার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ১৯৬২ সালে স্থাপিত হয়। স্বাস্থ্যসেবাকে ত্বরান্বিত করতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ১৫ শয্যা থেকে ৩১ শয্যা, বর্তমানে ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও সেবার মানের তেমন উন্নতি হয়নি বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ইতোমধ্যে ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও জনবল কাঠামো ৩১ শয্যারই রয়ে গেছে। সে মোতাবেক ২৬ জন চিকিৎসকের অনুমোদিত পদ থাকলেও বর্তমানে কর্মরত চিকিৎসক আছেন মাত্র ছয়জন।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শুভ্রা রানী দেবনাথ বলেন, রেগীরা স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সেটা সঠিক নয়। চিকিৎসকরা আন্তরিকভাবে সেবা দিচ্ছেন। তবে জনবল সংকটের কারণে একটু সমস্যা হচ্ছে। চিকিৎসক, পরীক্ষা-নিরীক্ষার উপকরণ ও অ্যাম্বুলেন্সেসহ সামগ্রিক প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের কছে আবেদন করা হয়েছে।