পাগলকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল ৫ ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতার

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৫

পাগলকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল ৫ ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতার

খুলনা প্রতিনিধি ৮:৪৪ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

print
পাগলকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল ৫ ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতার

খুলনার রূপসা বাইপাস সড়কে (লবণচরা থানার কাছে) ট্রাকের সঙ্গে প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ প্রাইভেটকার আরোহী নিহত হয়েছেন। এক পাগলকে বাঁচাতে গিয়ে ট্রাকের সঙ্গে প্রাইভেটকারটির এ সংঘর্ষ হয়।

রোববার রাত পৌনে ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ৫ প্রাইভেটকার আরোহীই গোপালগঞ্জের ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা।

নিহতরা হলেন- গোপালগঞ্জ শহরের সবুজবাগের অ্যাডভোকেট আবদুল ওয়াদুদ মিয়ার ছেলে ও গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব হাসান বাবু, একই এলাকার মৃত আলাউদ্দিন শিকদারের ছেলে ও গোপালগঞ্জ সদর যুবলীগের সহ-সভাপতি সাদিকুল আলম, থানাপাড়ার গাজী মিজানুর রহমানের ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের উপ-সম্পাদক ওয়ালিদ মাহমুদ উৎসব, গেটপাড়া এলাকার আলমগীর হোসেন মোল্লার ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সাজু আহমেদ এবং চাদমারী এলাকার ওয়াহিদ গাজীর ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সদস্য অনিমুল ইসলাম গাজী। এদের মধ্যে সাদিকুল গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

লবণচরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, প্রাইভেটকারটি মহানগরের জিরো পয়েন্ট এলাকা থেকে যাওয়ার পথে বিপরীত দিক থেকে আসা সিমেন্টবোঝাই ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো ট ১৮-২৫৮৪) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে প্রাইভেটকারের ভেতরে থাকা পাঁচ ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাই প্রাণ হারান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পুলিশ। ট্রাকটি জব্দ করা হলেও চালকসহ অন্যরা পালিয়ে যায়।

দু’টি গাড়ি যখন খাজুর বাগান অতিক্রম করছিল, তখন এক পাগল প্রাইভেটকারের সামনে এসে পড়লে তাকে বাঁচাতে গিয়েই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়।

মরদেহ উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ট্রাকটি জব্দ করা হলেও চালকসহ অন্যরা পালিয়ে গেছে বলেও জানান তিনি। 

রোববার খুলনায় ওই পাঁচজন বেড়াতে এসেছিলেন। সোমবার বাদজোহর গোপালগঞ্জ স্টেডিয়ামে নামাজের জানাজা শেষে তাদের দাফন করা হবে।