চীনে ১৪ হাজার মৃতদেহ পোড়ানোর অভিযোগ

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০ | ১৭ চৈত্র ১৪২৬

চীনে ১৪ হাজার মৃতদেহ পোড়ানোর অভিযোগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ৩:৩১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

print
চীনে ১৪ হাজার মৃতদেহ পোড়ানোর অভিযোগ

করোনা ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনের উহান শহরের বাতাসে মাত্রাতিরিক্ত সালফার ডাইঅক্সাইডের (এসও-২) উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। ব্যাপক পরিমাণ মৃতদেহ এবং হাসপাতালের আবর্জনা পোড়ানোর কারণে এমনটা হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তবে সবার জন্য উন্মুক্ত ওয়েবসাইট ‘১৪পযধহ’ এর ব্যবহারকারীদের অভিযোগ, প্রায় ১৪ হাজার মৃতদেহ ভস্মীভ‚ত করা হয়েছে চীনে।

গত মঙ্গলবার স্যাটেলাইটের মাধ্যমে তোলা ছবির সূত্র ধরে ডেইলি মেইল’ এবং দ্য এক্সপ্রেস ডট কম এর খবরে বলা হয়, চীনের উহান ও চংকিং শহরের বাতাসে সালফার ডাইঅক্সাইডের মাত্রা উদ্বেগজনক। এ দুটি শহরে প্রতি কিউবিক মিটারে সালফার ডাইঅক্সাইডের উপস্থিতি ১৩৫০ মাইক্রোগ্রাম।

যেখানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, প্রতি ১০ মিনিটের ব্যবধানে এই মাত্রা ৫০০ মাইক্রোগ্রামের বেশি হওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকি বয়ে আনতে পারে। ‘১৪পযধহ’ ওয়েবসাইট ব্যবহারকারীদের অভিযোগ, চীনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত প্রায় ১৪ হাজার ব্যক্তির মৃতদেহ পোড়ানো হয়েছে।

কারণ একজন ব্যক্তির মৃতদেহ পোড়ালে ১১৩ গ্রাম সালফার ডাইঅক্সাইড উৎপন্ন হয়। সে হিসাবে উহানের বাতাসে যে পরিমাণ সালফার ডাইঅক্সাইডের উপস্থিতি পাওয়া গেছে, তাতে প্রায় ১৩ হাজার ৯৬৮টি মৃতদেহ পোড়ানো হয়েছে। এ সালফার ডাইঅক্সাইডের সঙ্গে উৎপন্ন হচ্ছে নাইট্রোজেন অক্সাইড, যা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ এসিডের প্রভাবে স্থানীয় জনগণের হাঁপানি, ফুসফুস প্রদাহ এবং ফুসফুসের কার্যক্ষমতা হ্রাস পাবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এসও-২ শ্বাসক্রিয়া এবং ফুসফুসের কার্যক্রমকে প্রভাবিত করতে পারে এবং চোখ জ্বালা করে।