অবরুদ্ধ কাশ্মীরে চার মাসে নিহত ৩৮, আহত ৮৫৩

ঢাকা, বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০ | ৮ মাঘ ১৪২৬

অবরুদ্ধ কাশ্মীরে চার মাসে নিহত ৩৮, আহত ৮৫৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ২:৫৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৪, ২০১৯

print
অবরুদ্ধ কাশ্মীরে চার মাসে নিহত ৩৮, আহত ৮৫৩

কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে এখনো আলোচনা-সমালোচনা চলছেই। এরই মধ্যে কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিস বলছে, গত ৪ মাসে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে সেখানকার ৩৮ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ৮৫৩ জন। নিহতদের মধ্যে ২ নারীসহ ৩ জন যুবক ছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার রেডিও পাকিস্তান এক প্রতিবেদনের মাধ্যমে কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিসের তথ্য প্রচার করে।

কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিসের ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, নিহত ৩৮ জনের মধ্যে জেলে বা ভুয়া এনকাউন্টারে ৭ জনকে মেরে ফেলা হয়। এছাড়া শান্তিপূর্ণ মিছিলে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৮৫৩ জন গুরুতর জখম হয়। এছাড়া অন্তত ১১ হাজার ৪০০ জন হুরিয়াত নেতা, এক্টিভিস্ট, রাজনৈতিক নেতা, ব্যবসায়ী, সিভিল সোয়াইটি মেম্বারকে এখনো জেলে কিংবা গৃহে বন্দি করে রাখা হয়েছে। এছাড়া ভারতীয় বাহিনীর হাতে এখন পর্যন্ত ৩৯ জন নারীকে শ্লীলতাহানি ও অপমানের স্বীকার হতে হয়েছে।

কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিস বলছে, ভারতীয় দখলদার কর্তৃপক্ষ গত ৫ আগস্ট থেকে শ্রীনগরের ঐতিহাসিক জামিয়া মসজিদে শুক্রবারের নামাজ আদায় করতে দিচ্ছে না।
উপত্যকাটিতে বন্ধ হয়ে আছে ইন্টারনেট সেবা, প্রিপেইড মোবাইল ও টেক্সট আদান প্রদান সেবা। সেইসঙ্গে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী বিভিন্ন অঞ্চলে অব্যাহত রেখেছে তল্লাশি অভিযান। তবে, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার বলছে, কাশ্মীরে সব রকম সুবিধা পাচ্ছে সেখানকার নাগরিকরা।

প্রসঙ্গত, গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপির নেতৃত্বাধীন দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এই পদক্ষেপ ঘিরে কাশ্মীরজুড়ে মোতায়েন করা হয় বিপুলসংখ্যক অতিরিক্ত সেনা। আটক করা হয়েছে সেখানকার রাজনীতিকদের। কঠোর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা হয় সংবাদমাধ্যমের ওপর।

একইসঙ্গে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারত পাকিস্তানের সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে। কাশ্মীরে ভারতের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে পালটা ব্যবস্থা হিসেবে ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারকে বহিষ্কারের পাশাপাশি দুই দেশের বাণিজ্য সম্পর্কও স্থগিত করেছে পাকিস্তান।