ভিসার ফি কমালো সৌদি আরব

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

ভিসার ফি কমালো সৌদি আরব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ৭:১৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

print
ভিসার ফি কমালো সৌদি আরব

সৌদি আরবের মন্ত্রিপরিষদ সম্প্রতি হজ ও উমরাহ পালনকারী, দর্শনার্থী এবং পরিবহনযাত্রীদের জন্য ভিসা ব্যবস্থার পুনর্গঠন অনুমোদন করেছে। এই নতুন ব্যবস্থায় সব ধরনের ভিসার ফি কমিয়ে ৩০০ সৌদি রিয়াল করা হয়েছে। দেশটিতে ঘুরতে যাওয়া পর্যটক এবং পরিবহন যাত্রীরাও ভিসা ফির এই সুবিধা পাবেন।

একই সঙ্গে একাধিকবার ওমরাহ পালনের জন্য ভিসার যে ফি পরিশোধ করতে হতো, সেটিও বাতিল করা হয়েছে। দেশটির মন্ত্রিপরিষদের এক বৈঠকে ভিসা ব্যবস্থা পুনর্গঠনের এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার সৌদি গ্যাজেটের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, আগের আইনে দেশটিতে ওমরাহ পালনের জন্য যাত্রীদের ভিসা ফি বাবদ টানা তিন বছর ২ হাজার সৌদি রিয়াল দিতে হতো। নতুন এই আইনের ফলে সেটি আর কার্যকর থাকছে না। সম্প্রতি এ ব্যাপারে মন্ত্রিপরিষদের নেয়া সিদ্ধান্তে ভিসার ধরন ও মেয়াদকাল নিয়ে একটি তালিকা প্রকাশ করেছে দেশটির আরেক সংবাদমাধ্যম আলআরাবিয়া।

দেশটির ভিসা সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, হজ এবং ওমরাহ যাত্রীদের জন্য বেশ কিছু নতুন আইন আনা হয়েছে। নতুন আইনে লাইসেন্সকৃত কোম্পানিগুলোকে ভ্রমণ শর্ত এবং হেলথ ইন্সুরেন্স অনুস্মরণ করতে হবে। পর্যটক ও পরিবহন যাত্রীদেরও এসব আইন মেনে চলতে হবে।

নতুন এই আইনের ব্যাপারে রাজকীয় ফরমান জারি করায় সৌদি বাদশাহ সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন দেশটির হজ এবং ওমরাহবিষয়ক মন্ত্রী ও গেস্ট সার্ভিস প্রোগ্রাম কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ বেনতেন।

সৌদি প্রেস অ্যাজেন্সিতে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, হজ ও ওমরাহ পালনের জন্য মুসলমানদের আগমনকে আরো সহজ করতে সৌদির বিচক্ষণ নেতৃত্বের আগ্রহে রাজকীয় ডিক্রিটি জারি হয়েছে।

মোহাম্মদ বেনতেন বলেন, এই আইনের মাধ্যমে সৌদিতে ক্রমবর্ধমান হজ এবং ওমরাহ যাত্রীদের গ্রহণ সক্ষমতার প্রস্তুতির বিষয়টি উঠে এসেছে। পবিত্র স্থাপনাগুলোতে এবং মক্কা ও মদিনায় সেবা ব্যবস্থাপনা ও বিশাল অবকাঠামো প্রকল্প উন্নয়নের মাধ্যমে এই প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

এই সিদ্ধান্তের ফলে সৌদি আরবের ভিশন-২০৩০ এর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি লক্ষ্য পূরণ সম্ভব হবে। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি হজ এবং ওমরাহ যাত্রীকে গ্রহণ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে সৌদি।

দেশটির হজ এবং ওমরাহ বিষয়ক সৌদি উপমন্ত্রী ডা. আব্দুল ফাত্তাহ মাশাত বলেছেন, সহজ এবং আরামদায়ক হজ ও ওমরাহ পালনে সারাবিশ্বের মুসলিমদের জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সৌদি।