কাশ্মীরে বিক্ষোভ

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬

কাশ্মীরে বিক্ষোভ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ১:৪৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৯

print
কাশ্মীরে বিক্ষোভ

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর ভারত সরকারের তীব্র দমননীতির প্রতিবাদে কাশ্মীরের রাস্তায় বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয় শত শত মানুষ। এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। শ্রীনগরের প্রধান সড়কে তারা আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ ও ছররা গুলি চালায়। এর মধ্যে কাশ্মীরের নওসেরা এবং রাজৌরি সেক্টরে পাকিস্তানি সেনার গুলিতে এক ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছে।

এদিকে কাশ্মীর নিয়ে ভারত এবং পাকিস্তান নিজেদের মধ্যে কথা বলার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মাঝেই ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছে জম্মু-কাশ্মীর। কার্ফু উঠে গিয়ে স্কুল-কলেজ খোলার পর এবার বেশ কিছু জায়গায় মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট পরিষেবা শুরু হয়েছে। এছাড়া ওআইসি কাশ্মীর ইস্যুতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। গত শুক্রবার কাশ্মীরের রাস্তায় বিক্ষোভ করেছেন কয়েকশ মানুষ।

এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। রাজ্যের রাজধানী শ্রীনগরের প্রধান সড়কে তারা আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ ও ছররা গুলি চালায়। বিক্ষোভকারীরাও নিরাপত্তা বাহিনীর উদ্দেশে পাথর ছোড়ে।

এদিকে ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছে জম্মু-কাশ্মীর। গতকাল শনিবার কার্ফু উঠে গিয়ে স্কুল-কলেজ খোলার পর এবার বেশ কিছু জায়গায় মোবাইলে ইন্টারনেট পরিষেবা শুরু হয়েছে। মোট ১০০টি টেলিফোন এক্সচেঞ্জের মধ্যে ১৭টি চালু করা হয়েছে। চালু হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার ল্যান্ডলাইন। শ্রীনগরের কিছু কিছু এলাকাতেও চালু হয়েছে টেলিফোনের ল্যান্ডলাইন পরিষেবা।

বাদগাম, সোনমার্গ ও মধ্য কাশ্মীরের মনিগাম ও উত্তর কাশ্মীরের গুরেজ, তাঙ্গমার্গ, উরি কেরন কারনা, তাঙ্গধারে ল্যান্ডলাইন পরিষেবা চালু হয়েছে। আর শ্রীনগরে ওই পরিষেবা চালু হয়েছে বিমানবন্দর লাগোয়া এলাকা, সিভিল লাইন্স ও ক্যান্টনমেন্ট এলাকায়।

আর মোবাইলে ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করা হয়েছে জম্মুর পাঁচটি জেলায়। তাদের মধ্যে রয়েছে, জম্মু, রিয়াসি, সাম্বা, কাঠুয়া ও উধমপুর।

এদিকে গতকাল ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে আবারও গোলাগুলি শুরু হয়েছে। এতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ল্যান্স নায়েক সন্দীপ থাপা নিহত হয়েছেন। ভারতীয় গণমাধ্যম জি নিউজ এ খবর দিয়েছে। মাত্র দুদিন আগেই দু’পক্ষের গোলাগুলিতে ভারতের পাঁচজন এবং পাকিস্তানের তিন সেনা নিহত হয়।