কারফিউ-কাঁটাতারে কাশ্মীরিদের ঈদ

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

কারফিউ-কাঁটাতারে কাশ্মীরিদের ঈদ

ডেস্ক রিপোর্ট ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০১৯

print
কারফিউ-কাঁটাতারে কাশ্মীরিদের ঈদ

কাশ্মীর উপত্যকায় গত সোমবার কোরবানির ঈদ উদযাপিত হয় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা আর কঠোর কারফিউর মধ্যে। তবে জম্মুর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। আর কাশ্মীরে থাকা নিষেধাজ্ঞা আজ বৃহস্পতিবার ভারতের স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের পর শিথিল করা হবে। গতকাল বুধবার বার্তা সংস্থা এএফপি এবং হিন্দুস্তান টাইমস এ খবর জানিয়েছে।

ঈদের নামাজ আদায়ে বাধা : শ্রীনগরের বড় কোনো মসজিদ বা প্রধান রাস্তায় ঈদ জামাতের অনুমতি দেওয়া হয়নি। জামিয়া মসজিদ বা হজরতবালের মতো প্রধান মসজিদগুলোতেও বড় ঈদ জামাত হয়নি। নির্দেশ মতো স্থানীয়রা মহল্লার ছোট মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেন। সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের এক ভিডিওতে শ্রীনগরের একটি মসজিদে ঈদের জামাত হতে দেখা গেছে। তবে সেখানে বড়জোর ৭০-৮০ জন মানুষ ছিলেন। এর মধ্যে আবার পুলিশের ছররা গুলিতে আহত হয়ে অনেকেই হাসপাতালে ভর্তি। যদিও সরকার তা অস্বীকার করছে। ভারতের যেসব অভিবাসী শ্রমিক কাশ্মীরে গিয়ে কাজ করতেন, তারাও ফিরে আসছেন। ঈদের আগে তারা যে কিছু টাকা পাবেন বলে ভেবেছিলেন, তার কিছুই জোটেনি। ঈদের দুদিন আগে শহরে চলা কারফিউ কিছুটা শিথিল করা হলেও তা ঈদের দিন সকাল থেকেই তা ফের চালু হয়।

কেন কারফিউ, জবাব নেই
নতুন করে কড়াকড়ির বিষয়ে সরকারি কর্মকর্তারা কোনো জবাব দিচ্ছেন না। তারা দাবি করছেন কোনো কারফিউ নেই। অথচ রাস্তায় পুলিশের গাড়ি মাইকিং করছে, কেউ যেন কারফিউতে বাড়ি থেকে না বেরোয়!

বিক্ষোভের ভিডিও নিয়ে বিতর্ক
রাজধানী শ্রীনগরে গত শুক্রবার হাজার হাজার লোকের বিক্ষোভের একটি ভিডিও ফুটেজ দেখা গেছে। যদিও ভারত সরকার দাবি করে ওই রকম কোনো বিক্ষোভ হয়নি। ভিডিওতে দেখা যায়, হাজার হাজার লোকের সেই বিক্ষোভে কাশ্মীরের স্বাধীনতার পক্ষে মুহুর্মুহু সেøাগান। ওই বিক্ষোভে পুলিশ টিয়ারগ্যাস ও ছররা গুলিও নিক্ষেপ করে।