ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৫
গাজার হাসপাতালে ঠাঁই নেই
ডেস্ক রিপোর্ট
Published : 2018-05-16 22:44:00
গাজার হাসপাতালে ঠাঁই নেই

গত সোমবার ইসরায়েলের বর্বরোচিত হামলায় আহত হয়েছে বিপুলসংখ্যক ফিলিস্তিনি। হতাহতদের চিকিৎসা নিয়ে সেখানে মানবিক সঙ্কট তৈরি হয়েছে। হাসপাতালগুলোতে ঠাঁই নেই, আহতদের অতিরিক্ত ভিড়ের কারণে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়াও সম্ভব হচ্ছে না।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকার পরও চিকিৎসা সরঞ্জামের অভাবের কারণে সমস্যা তৈরি হচ্ছে।
সবচেয়ে বেশি ধকল সামলাতে হচ্ছে গাজার প্রধান হাসপাতাল আল সাফিয়া হাসপাতালকে। সংঘর্ষ শুরুর পর থেকেই রোগী ও শোকার্ত স্বজনদের ঢল নেমেছে ওই হাসপাতালে। জায়গা না পেয়ে আহত ব্যক্তিদের অনেকেই হাসপাতালের করিডরে আশ্রয় নিয়েছেন।
উল্লেখ্য, তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদে বিক্ষোভে গাজায় ইসরায়েলে হামলায় নিহত ব্যক্তির সংখ্যা ৬০ ছাড়িয়েছে। ২০১৪ সালের পর এক দিনে এত ফিলিস্তিনি নিহত হওয়ার ঘটনা এ প্রথম। ফিলিস্তিনের কর্মকর্তারা বলেছেন, সহিংসতায় নিহত হওয়ার পাশাপাশি ২ হাজার ৭০০ জন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া গত ৩০ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত ইসরায়েলি বাহিনী অন্তত ১০৯ জন ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। আহত হয়েছে অন্তত ১২ হাজার। এবারের সংঘাত যে কতটা ভয়াবহ, তা দেখা যায় আল সাফিয়া হাসপাতালে গিয়ে। সেখানে সাংবাদিকদের পাশাপাশি নিহত ও আহত ব্যক্তিদের স্বজনেরা জটলা পাকিয়ে অপেক্ষা করছেন। সার্জনেরা যখন অস্ত্রোপচারকক্ষে একটার পর একটা অস্ত্রোপচারে ব্যস্ত, তখন করিডরে লাইন দিয়ে আছেন আরও অনেক আহত ব্যক্তি।
আল সাফিয়া হাসপাতালের জরুরি বিভাগের প্রধান আইমান আল সাহাবানি বলেন, ‘হাসপাতালে অন্তত ১৮ জন মারা গেছে। হাসপাতালের সক্ষমতা যতটুকু, তার চেয়ে অনেক ছাড়িয়ে গেছে। একবারে ৫০০ জনকে গ্রহণ করি আমরা।’ গোলাগুলি ও বিস্ফোরণের মাধ্যমে অধিকাংশ গুরুতর জখমের ঘটনা ঘটেছে বলে জানান তিনি।
আল সাহাবানি আরও যোগ করেন, ‘পর্যাপ্ত চিকিৎসা সরঞ্জামের অভাব থাকা সত্ত্বেও হাসপাতালের কর্মীরা তাদের সর্বোচ্চ দিয়ে আহতদের শুশ্রুষা করে যাচ্ছেন। অধিকাংশ আহতরা শরীরের নিচের অংশে আঘাতপ্রাপ্ত। এ ছাড়া মুখে এবং বুকের মধ্যে অনেকের মারাত্মক জখম। চিকিৎসার ব্যাপারে আমরা গুলিবিদ্ধ হওয়া আহতদের অগ্রাধিকার দিচ্ছি।’




সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক
মো. আহসান হাবীব
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক
ড. কাজল রশীদ শাহীন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত খোলাকাগজ ২০১৬
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বসতি হরাইজন ১৮/বি, হাউজ-২১, রোড-১৭, বনানী বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১২১৩।
ফোন : +৮৮-০২-৯৮২২০২১, ৯৮২২০২৯, ৯৮২২০৩২, ৯৮২২০৩৬, ৯৮২২০৩৭, ফ্যাক্স: ৯৮২১১৯৩, ই-মেইল : editorkholakagoj@gmail.com    kholakagojnews@gmail.com
Developed & Maintenance by Poriborton IT Team. Email : rafiur@poriborton.com
var _Hasync= _Hasync|| []; _Hasync.push(['Histats.start', '1,3452539,4,6,200,40,00010101']); _Hasync.push(['Histats.fasi', '1']); _Hasync.push(['Histats.track_hits', '']); (function() { var hs = document.createElement('script'); hs.type = 'text/javascript'; hs.async = true; hs.src = ('//s10.histats.com/js15_as.js'); (document.getElementsByTagName('head')[0] || document.getElementsByTagName('body')[0]).appendChild(hs); })();