মিয়ানমারের স্কুলে বিমান হামলা, নিহত ১৩

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১০ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

মিয়ানমারের স্কুলে বিমান হামলা, নিহত ১৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
🕐 ২:৫০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২

মিয়ানমারের স্কুলে বিমান হামলা, নিহত ১৩

মিয়ানমারের চলমান উত্তেজনার মধ্যে দেশটির উত্তর-মধ্য অঞ্চলে বিমান হামলায় একটি স্কুলের ৭ শিশুসহ ১৩ জন নিহত হয়েছেন।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) স্কুলটির কর্তৃপক্ষ এই তথ্য সংবাদমাধ্যমকে জানান। গত শুক্রবার সেন্ট্রাল সাগাইং অঞ্চলের লেট ইয়েট গ্রামে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

সংবাদমাধ্যম এপির বরাতে এক প্রতিবেদনে ইউএনবি জানায়, গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে অং সান সুচির নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখলের...পর থেকে এটিই শিশুদের ওপর চালানো সবচেয়ে বড় বিমান হামলা।

সামরিক বাহিনীর দাবি, বিদ্রোহীরা সরকারি বাহিনীকে আক্রমণ করার জন্য ওই ভবনটি ব্যবহার করছিল। ফলে গুলি চালাতে তারা বাধ্য হয়েছে।

স্কুল কর্তৃপক্ষ এপিকে জানিয়েছে, সরকারি এমআই-৩৫ গানশিপ যখন স্কুলে গুলি চালায় তখন তিনি শিশুদের নিরাপত্তার জন্য চেষ্টা করছিলেন। যেহেতু ছাত্ররা কোনো ভুল করেনি..., আমি কখনো ভাবিনি যে তাদের মেশিনগান দিয়ে নির্মমভাবে গুলি করা হবে। তারা এক ঘণ্টা ধরে আকাশ থেকে কম্পাউন্ডে গুলি চালিয়েছে। তারা এক মিনিটের জন্যও থামেনি। তখন আমরা যা করতে পারতাম তা হল বৌদ্ধ মন্ত্র উচ্চারণ করা।

রাষ্ট্রীয় মিডিয়া আউটলেটগুলো পরের দিন হামলার বিষয়ে দাবি করে, সরকারি বাহিনী একটি বিশেষ কাজে গ্রামে গিয়েছিল। তাদের কাছে তথ্য ছিল পিপলস ডিফেন্স ফোর্স (পিডিএফ)-এর সদস্য এবং কাচিন ইন্ডিপেনডেন্স আর্মি (কেআইএ) ও এর সহযোগীরা স্কুল সংলগ্ন মঠে লুকিয়ে ছিল। ক্ষমতাসীন মিয়ানমার...জান্তা সরকার তাদের ‘‘সন্ত্রাসী বাহিনী” বলেই মনে করে। তাদের দাবি, পরিদর্শনে গেলে এই দুই সন্ত্রাসী বাহিনী তাদের সরকারি নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর গুলি চালায়।

বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলেও সরকার হতাহতের ঘটনাকে অস্বীকার করেছে। তাদের দাবি, পিডিএফ এবং কেআইএ গ্রামবাসীদের মানব ঢাল হিসাবে ব্যবহার করেছে। এটি শিশুদের মৃত্যুর বিষয়ে কোনো কিছু উল্লেখ করেনি।

 
Electronic Paper