বিএসএমএমইউতে প্রথমবার সফল লিভার প্রতিস্থাপন

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬

বিএসএমএমইউতে প্রথমবার সফল লিভার প্রতিস্থাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক ১০:০৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৯

print
বিএসএমএমইউতে প্রথমবার সফল লিভার প্রতিস্থাপন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) প্রথমবারের মতো লিভার প্রতিস্থাপনে (ট্রান্সপ্লান্ট) সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। সিরাতুল ইসলাম নামে ২০ বছর বয়সী এক যুবকের দেহে হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারি বিভাগে গত সোমবার এ সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। এর মধ্য দিয়ে দেশে লিভার প্রতিস্থাপন চিকিৎসার নতুন দিগন্ত খুলে গেল বলে মনে করছেন চিকিৎসা সংশ্লিষ্টরা।

গতকাল মঙ্গলবার বিএসএমএমইউতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া এ সাফল্যের কথা তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সচিব আসাদুল ইসলাম, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডাক্তার শাহানা আক্তার রহমান, হেপাটোবিলিয়ারি প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খান, অ্যানেসথেসিয়া, অ্যানালজেসিয়া এন্ড ইনটেনসিভ কেয়ার মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. একে এম আখতারুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ভিসি কনক কান্তি বড়–য়া জানান, সোমবার ভোর ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত অস্ত্রোপচার করা হয়। রোগীকে প্রথমে অ্যানেসথেসিওলজিস্ট দিয়ে অজ্ঞান করা হয়। প্রস্তুতি থেকে শুরু করে পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে মোট ১৮ ঘণ্টা সময় লাগে। ৬০ জন চিকিৎসকের টিম ঐতিহাসিক এ অস্ত্রোপচারে অংশ নেন। তিনি বলেন, রোগীকে মোট ২০ ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়। এ রক্ত দেন ডাক্তাররা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ অস্ত্রোপচার সম্পর্কে সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নেন। রোগীর জ্ঞান ফিরেছে। চোখ মেলে তাকিয়েছে। লিভার প্রতিস্থাপনে সহযোগিতা করেন ভারতের বিশিষ্ট লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জন ড. বালাচান্দ্র মেনন ও তার চিকিৎসক দল।

জানা গেছে, যে রোগীর লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করা হয়েছে তা বিনামূল্যে করা হয়েছে। প্রতিবছর কমপক্ষে পাঁচ শতাধিক রোগী বিদেশে গিয়ে লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করিয়ে থাকেন। এটি খুবই ব্যয়বহুল একটি চিকিৎসা। ভারতে লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করতে ৫০ লাখ থেকে এক কোটি টাকা লাগে।

সিঙ্গাপুরে আরও বেশি খরচ হয়। বাংলাদেশে কত খরচ হবে সে বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে গতকাল স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি। বলা হয়েছে পরে জানানো হবে।