করোনা সেরে যাওয়ার পরেও কাশি? সুস্থ হতে যা করবেন

ঢাকা, সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২ | ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

করোনা সেরে যাওয়ার পরেও কাশি? সুস্থ হতে যা করবেন

ডেস্ক নিউজ
🕐 ১২:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ২০, ২০২২

করোনা সেরে যাওয়ার পরেও কাশি? সুস্থ হতে যা করবেন

করোনা রোগীর সংখ্যা আবারও বেড়ে চলেছে। সংখ্যায় আগের থেকে কম হলেও, প্রতিদিনই আসছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর খবর। বেশিরভাগ মানুষই এখন করোনার বিধি-নিষেধ মানছেন না। এই সুযোগে ফের থাবা বসাতে শুরু করোছে করোনাভাইরাস। তাই আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। করোনা থেকে সেরে ওঠার পরও থেকে যাচ্ছে কাশি। ল্যানসেট জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়, সেরে ওঠার পর ৪ সপ্তাহ বা তারও বেশি সময় কাশি থাকতে পারে।

কাশির কারণ কী?

করোনা সেরে যাওয়ার পরও কাশি থেকে যাওয়ার কারণ হলো কোভিড হল রেসপিরেটরি ভাইরাস। এই ভাইরাস প্রদাহ তৈরি করে গলা থেকে শুরু করে ব্রঙ্কাইল টিউবের মিউকাস মেমব্রেনে। এই প্রদাহ দীর্ঘ সময় থাকতে পারে। এমনকী চলতে পারে কয়েক মাস পর্যন্ত। কারো কারো ক্ষেত্রে এই প্রদাহ সহজে সেরে ওঠে না। তখন সমস্যার সৃষ্টি হয়। কাশির কারণে অস্বস্তি হতে পারে। এদিকে অসুখ থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার জন্য আপনার শরীরের অন্যতম অস্ত্র হলো কাশি। কারণ আমাদের শরীর কাশির মাধ্যমেই মৃত কোষ বা মিউকাস বের করে দিতে পারে। এভাবেই আপনি সুস্থ হয়ে ওঠেন। তাই কাশি থাকলেও চিন্তার কারণ নেই।

সেরে ওঠার পর কাশির মাধ্যমে করোনা ছড়ায়?

এটি সম্ভব নয়। কারণ করোনার একটি আইসোলেশন সময় রয়েছে। সেই সময় পার হয়ে গেলে কাশির মাধ্যমে রোগ ছড়ানোর ভয় থাকে না। আক্রান্ত হওয়ার পর মোটামুটি দশদিন এই ভয় থাকে। এই সময়ের পর জটিলতা থাকে না। তবে কারও কারও ক্ষেত্রে বিশদিন পর্যন্ত ভাইরাস ছড়ানোর ভয় থাকে। তাই কাশি থাকলে মুখে মাস্ক ব্যবহার করুন।

লং কোভিড কী?

করোনা সেরে যাওয়ার পর অনেকদিন ধরে একইরকম ক্লান্তি ও অন্যান্য সমস্যা থাকতে পারে। এই জটিলতাকে বলা হয় লং কোভিড। এই লং কোভিড অনেক সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে। তাই দীর্ঘদিন ধরে কাশি থাকলে সতর্ক হোন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

সমাধান করবেন যেভাবে

প্রতিদিন নিয়ম করে গার্গল করুন। এক্ষেত্রে হালকা গরম পানির সঙ্গে লবণ মিশিয়ে কিছুটা সময় নিয়ে গার্গল করুন। আপনার যদি দশ দিনের বেশি কাশি থাকে তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। যেকোনো ওষুধ গ্রহণের আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। নিজে থেকে কোনো ওষুধ সেবন করবেন না।

 
Electronic Paper