শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পদচারণার অপেক্ষায়...

ঢাকা, রবিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১ | ১১ মাঘ ১৪২৭

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পদচারণার অপেক্ষায়...

রাজু আহমেদ ৩:৩২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৭, ২০২০

print
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পদচারণার অপেক্ষায়...

মানুষের জীবন হলো কয়েকটি স্মৃতির সমষ্টি। প্রত্যেক মানুষের জীবনে কিছু না কিছু স্মৃতি থাকে আর এই স্মৃতির অন্যতম অধ্যায় হলো ক্যাম্পাস লাইফ। ক্যাম্পাস জীবনের মতো রঙিন আর সুন্দর সময় নাকি একজন শিক্ষার্থীর জীবনে খুব একটা আসে না। করোনার কারণে শুধু ক্যাম্পাস লাইফ না আজ যেন বিশ্বটা থেমে গেছে। বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের মতামত তুলে ধরেছেন রাজু আহমেদ

ফিরে যেতে চাই জ্ঞানের দীপশিখায়
উজ্জ্বল মন্ডল, আইন বিভাগ, তৃতীয় বর্ষ

প্রাণ-প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানিতে বিকশিত হচ্ছে দক্ষিণবঙ্গের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। যে বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ উদ্ভিদ সংগ্রহশালা হয়ে উঠেছে। সারা বছর নানা ধরনের ফুল ও পাখিদের কিচিরমিচির শব্দে মুখরিত অনন্য ক্যাম্পাস। তবে শীতের সময় সবুজের ক্যাম্পাস ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে আসে। সকালে কুয়াশায় মোড়ানো শিশির ভেজা ক্যাম্পাস প্রাণ ফিরে পায় বশেমুরবিপ্রবি। ফিরে যেতে চাই প্রিয় জ্ঞানের দীপশিখায়।

কুয়াশার চাদরে মোড়ানো প্রিয় ক্যাম্পাস
সাদিয়া মীম, আইন বিভাগ, দ্বিতীয় বর্ষ

সকালবেলা ক্লাসের উদ্দেশ্যে ক্যাম্পাসে পা রাখতেই শিশির ভেজা ঘাসের স্পর্শ, কুয়াশার কারণে অল্প একটু দূর থেকে হেঁটে আশা পরিচিত মুখগুলোকেও অপরিচিত লাগা কিংবা গাছের পাতা থেকে ঝরে পড়া টুপটাপ শিশির বিন্দু এসব কিছুই বশেমুরবিপ্রবি ক্যাম্পাসকে জানান দেয় শীতের আগমনী বার্তার।

গ্রীষ্মের কাক ফাটা রোদে অতিষ্ঠ হওয়া দিনগুলোকে অতিক্রম করে, পর্যায়ক্রমে শীত এই ক্যাম্পাসে হাজির হয় তার স্নিগ্ধতা নিয়ে। গাছে গাছে ফুটে ওঠা ফুলগুলো যেন ক্যাম্পাসের সৌন্দর্যকে দ্বিগুণ হারে বাড়িয়ে তোলে। ক্লাস শেষে আড্ডা জমে ওঠে আইন চত্বরে, জয় বাংলা এবং হাসিনা চত্বরে। হিমেল হাওয়া আর শৈত্যপ্রবাহ ছাড়া শীতকে যেমন কল্পনা করা যায় না, তেমনি ভাপা পিঠা আর চিতই পিঠা ছাড়াও এই শীতের সন্ধ্যাকে অসম্পূর্ণ লাগে।

নতুন বছরে ক্যাম্পাসে যেতে চাই
মাহমুদ আলম, রসায়ন বিভাগ, দ্বিতীয় বর্ষ

আবেগ ও ভালোবাসার আরেক নাম প্রিয় ক্যাম্পাস এখানে প্রতিদিন হাতছানি দেয় হাজারো স্বপ্ন। জ্ঞানার্জনের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা মেতে থাকে আড্ডা, খেলাধুলায়। প্রতিদিন শিক্ষার্থীদের কোলাহলে মুখরিত থাকে প্রিয় ক্যাম্পাসটি। হল, ডিপার্টমেন্ট কোনোটিই যেন ভুলে থাকার মতো নয়। তবে আজ সবই অতীত। করোনাভাইরাসের কারণে সবকিছুর মতো বন্ধ হয়ে যায় সদা মুখরিত ক্যাম্পাসটিও।

গৃহবন্দি হয়ে যায় হাজারো স্বপ্ন। তবে এই গৃহবন্দি জীবনেও কখনো ভোলা যায় না প্রিয় ক্যাম্পাসটির কথা। ভোলা যায় না প্রতিদিন সকালে ক্লাসে যাওয়া, ল্যাব ক্লাস করার কথা। সদা মনে পড়ে বালুর মাঠে চায়ের কাপে উষ্ণ চুম্বন দেওয়ার কথা। মনে পড়ে লেকপাড়, হল চত্বরে আড্ডা দেওয়ার কথা। আমরা ফিরে যেতে চাই আমাদের সেই চিরচেনা ক্যাম্পাসে। আর সেটা বেশি দূরে নয়, নতুন বছরে ফিরতে চাই।

গল্প গানে আড্ডায় আবারও মাতবে ক্যাম্পাস
সাদিয়া আফরিন, ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং ডিপার্টমেন্ট, তৃতীয় বর্ষ

ক্যাম্পাসের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে, মনে হচ্ছে সেই ব্যস্ততম দিনগুলো এখন ফিরে আসার খুব দরকার। এই কোয়ারান্টিন এর বদ্ধ দিনগুলোতে স্মৃতিতে প্রিয় বশেমুরবিপ্রবি-এর প্রিয় মুখগুলো, প্রিয় অনুপ্রেরণাগুলোকে ভীষণভাবে টেনেছে। প্রতি ডিসেম্বরে ট্রেনে করে একসঙ্গে দলবেঁধে বাড়ি ফেরার যে আকুলতাটা ছিল এই তিন বছর, শেষ বছরে এসে সেই ফেলে আসা ব্যস্ততাকে আবার উপলব্ধি করতে মন চাইছে।

অবশ্য আসছে নতুন বছর, হতাশার চেয়ে প্রত্যাশার পাল্লাটাই ভারী বেশি। ক্যাম্পাসের সেই সীমাহীন উদ্দীপনা, আত্মবিশ^াস আবার ফিরে পেতে চাই।