প্রিয় ক্যাম্পাস আমার অহংকার

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০ | ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭

প্রিয় ক্যাম্পাস আমার অহংকার

আবদুল্লাহ আল নোমান ৯:১১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ০৫, ২০২০

print
প্রিয় ক্যাম্পাস আমার অহংকার

ছোটবেলায় যখন স্কুলে আসা যাওয়া করতাম তখন থেকে বড় ভাইদের কাছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের গল্প শুনতাম। তখন থেকেই স্বপ্ন বুনা শুরু। ভর্তি যুদ্ধে আমি পরাজিত। কিন্তু আমি ব্যর্থ নই। দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পেয়েছি। ছোটবেলা থেকে আমার ছোট মগজে একটি তত্ত্বই ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে না পারলে আমার ভবিষ্যৎ অন্ধকার।

আমার এই হতাশযুক্ত ঘোর অন্ধকারকে আলো দেখায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। কি নাম শুনে অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন হয়তো কোন বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় নয়, নাই কোন বড় ক্যাম্পাস। 

অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মত হয়তো হাজার হাজার একর জায়গা নেই। শুধু কয়েকটি বিল্ডিং এ সীমাবদ্ধ আমার প্রিয় ক্যাম্পাস টা।

তবুও যেদিন প্রথম ১০১ একরের সবুজের ঘেরা ক্যাম্পাসটি দেখি তখন থেকে ভালবাসতে শুরু করি।

ভর্তি হওয়ার পর থেকে আমার সব আবেগ এই বিশ্ববিদ্যালয় কে নিয়ে। কারণ আমার ক্যাম্পাস আমার কাছে মায়ের মত। মা যেমন তার সন্তান কে বুকে টেনে নেয় ঠিক তেমনি আমার ক্যাম্পাস ও আমাকে সার্বক্ষণিক বুকে ধরে রাখে।

এই বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে শুধু ছাত্র হিসেবে নয় বরং উত্তম মানুষ হতে শিক্ষা দিয়েছে। অনেক কিছুই অর্জন করছি এখান থেকে।

হাজারো উদ্যেক্তা পাওয়া যায় এই ক্যাম্পাসে। ক্যাম্পাসের গলিতে হাটলে বুঝা যায় শিক্ষার্থীদের উদ্যেক্তা হয়ে উঠার গল্প।

আমাদের নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েও যে ভালো উদ্যেক্তা গড়ে উঠে এসবের উদাহরণ এখন। যারা বিশ্বের বুকে আমাদের ক্যাম্পাস কে আলোকিত করে তুলবে। ভালোবাসি প্রিয় ক্যাম্পাস কে। আমার ক্যাম্পাস আমার অহংকার।