অচেনা ক্যাম্পাস

ঢাকা, সোমবার, ১ জুন ২০২০ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

অচেনা ক্যাম্পাস

এস আহমেদ ফাহিম ৭:৩৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২০

print
অচেনা ক্যাম্পাস

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এর অংশ হিসেবে উপকূলীয় অক্সফোর্ড হিসেবে খ্যাত নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) বন্ধ ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ফলে ১০১ একরের এই স্বপ্নভূমি আজ বিরানভূমি, নেই শিক্ষার্থীদের আনাগোনা। কত আড্ডা, গল্প, গান এ মুখোরিত ক্যাম্পাস আজ অচেনা। শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখোরিত সেই একাডেমিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন, লাইব্রেরি আজ শূন্য।

ক্লাস, পরীক্ষা, প্রেজেন্টেশন, ল্যাব ক্লাস, ফিল্ড ওয়ার্ক নিয়ে শিক্ষার্থীদের নেই কোনো ব্যস্ততা। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য বরাদ্দকৃত সাদা বাস ও দোতলা বাসগুলোতে শিক্ষার্থীদের সিট না পেয়ে দাঁড়িয়ে যাতায়াত করতে হতো। কিন্তু আজকের চিত্র ভিন্ন। বাসে সিট ধরার জন্য কোনো দৌড়ঝাঁপ নেই। বাসগুলো আজ নিরবে দাঁড়িয়ে আছে।

ক্লাসের ফাঁকে, অবসরে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় ব্যস্ত সেই গোলচত্বর, প্রশান্তি পার্ক, শান্তিনিকেতন, নীল দিঘি, হতাশার মোড়।

শিক্ষার্থীদের আড্ডা, গল্প, গানে মুখোরিত সেই প্রশান্তি পার্ক ক্যান্টিন, কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া, শান্তিনিকেতনের পাশের টং দোকানগুলো জনশূন্য।

নেই সৃজনশীল কাজের ব্যস্ততা। আবাসিক হলের চিত্রও একই রকম। হলগুলো ও আজ নীরব, নেই আবাসিক শিক্ষার্থীদের ব্যস্ততা। হলগুলো বন্ধ হওয়ায় আবাসিক শিক্ষার্থীরা ফিরে গেছেন নিজ বাড়িতে, নিজ পরিবারের কাছে। বিদায়বেলায় শিক্ষার্থীদের মনে ছিলো করোনা ভাইরাসের শঙ্কা।

সবাই সুস্থভাবে ফিরে আসুক ক্যাম্পাসে, আবারো মুখোরিত হয়ে উঠবে ক্যাম্পাস এমনটাই প্রত্যাশা।