মেঘের রাজ্যে দু’দিন

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

মেঘের রাজ্যে দু’দিন

মাহবুব রায়হান ১২:৫৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

print
মেঘের রাজ্যে দু’দিন

মাথা উঁচু করে যে মেঘ আমরা তাকিয়ে তাকিয়ে দেখি! তাকে যদি হাত দিয়ে ছুঁই, তার পরশে নিজেকে আলিঙ্গন করে আসতে পারি, তবে কেমন অনুভব হয়? বলছি মেঘের রাজ্য খ্যাত রাঙামাটি জেলার সাজেক ভ্যালির কথা। সম্প্রতি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সদস্যরা এ বছরের ভ্রমণ স্থান হিসেবে সাজেক ভ্যালিকে বেছে নেয়। সেদিন যে যার মতো প্রস্তুতি নিয়ে ঠিক ১২ টায় প্রেস কর্নারে জড়ো হলাম। আমরা প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্ব বুঝে নিলাম। গাড়ি ক্যাম্পাস ক্রস করল ঠিক ২টা বেজে ৪৫ মিনিটে।

শীতের প্রকোপ একটু বেশি হওয়ায় আমরা গরম পোশাক পরিধান করে জবুথবু হয়ে অবস্থান করছি গাড়িতে। গাড়ি রাজবাড়ি এসে ব্যাপক জ্যামে পড়ল। প্রায় সোয়া একঘন্টা পর জ্যাম কাটিয়ে অবশেষে ফেরিতে উঠলাম। চারিদিকে ঘন কুয়াশা, অথৈ জলরাশির মধ্য দিয়ে ছুটে চলেছে ফেরি। নদীর সাথে মানুষের যে মিতালী, সেটা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে অবলোকন করছিলাম। ফেরি পার হওয়া মাত্রই আবার হৈ-হুল্লোড়ে মেতে উঠল সবাই।

দিঘীনালা বাজার থেকে সাজেকে যেতে ৩ ঘন্টা পথ পাড়ি দিতে হবে আমাদের। আমরা গাড়ির ছাদে উঠে পড়লাম। মেঘের সাথে মিতালি করতে গাড়িতে উঠে পড়লাম। চান্দের গাড়ি চলল কংলাক পাহাড়ের উদ্দেশ্যে। কংলাক হচ্ছে সাজেকের সর্বোচ্চ চূড়া। তথ্য মতে, এই পাহাড়ের চূড়া সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১ হাজার ৮০০ ফুট উঁচু। কংলাকে যাওয়ার পথে মিজোরাম সীমান্তের বড় বড় পাহাড়, আদিবাসীদের জীবনযাপন, চারদিকে মেঘের আনাগোনা দৃষ্টি কেড়ে নেয়।