খবরের ফেরিওয়ালা কুবিসাস

ঢাকা, শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০ | ১১ মাঘ ১৪২৬

খবরের ফেরিওয়ালা কুবিসাস

আবু বকর রায়হান ২:২২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০২০

print
খবরের ফেরিওয়ালা কুবিসাস

ক্যাম্পাস থেকেই শুরু হয় সাংবাদিকতা শেখার হাতেখড়ি। সৃষ্টিশীল ও সৃজনশীলতার বিচরণ হয় লেখনিতে। এখান থেকেই বের হন ভবিষ্যতের সাংবাদিক দিকপাল। শত বাধা অতিক্রম করে সত্য ও ন্যায়ের পথে সখ্যতা গড়ে এগিয়ে চলেন খবরের ফেরিওয়ালারা। স্বপ্ন দেখেন আলোকিত এক শিক্ষাঙ্গন গড়ার। এমনি স্বপ্ন নিয়ে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের সংগঠন ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)’।

অর্ধ যুগ পেরিয়ে, সাহস নিয়ে এগিয়ে এই স্লোগানে ষষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করল সংগঠনটি। বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা অনুষ্ঠান, খেলাধুলার আয়োজন, কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনটিকে মুখরিত করে রেখেছিলেন ক্যাম্পাসের কলম যোদ্ধারা। বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছবি তুলে দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে ভুলেননি সংগঠনের সদস্যরা। 

২০১১ সালে সমিতির কার্যক্রম শুরু হলেও ২০১৩ সালের ৬ ডিসেম্বর সাংগঠনিক মর্যাদা পায় সংগঠনটি। সেই থেকে শুরু ক্যাম্পাসে ক্লান্তিহীন পদচারণার। বর্তমানে ৯ সদস্যবিশিষ্ট ৫ম কার্যনির্বাহী পরিষদ সংগঠনটি পরিচালনা করছে। বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠিত করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন সাংবাদিক সমিতির সদস্যরা। সংবাদ প্রচারের পাশাপাশি সংগঠনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয় বিভিন্ন কর্মসূচি। সাংবাদিকতায় আগ্রহী শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজন করা হয় কর্মশালা, মাসিক গল্পে আড্ডায় সাংবাদিকতা। প্রকাশনা বিভাগের মাধ্যমে বার্ষিক ক্যালেন্ডার, স্মরণিকা প্রকাশ করে আসছে সংগঠনটি। 

দেশের বিভিন্ন ক্যাম্পাস সাংবাদিক সংগঠনের সঙ্গে ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দ্য বাড়াতে হাতে নেওয়া হয় বিভিন্ন কর্মসূচি। প্রতি বছর সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনসহ সাংবাদিকতা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দিবস পালন করে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতাভিত্তিক এই সংগঠনটি। এছাড়া কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের একমাত্র মুখপাত্র ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় বার্তার সম্পাদনাও করে থাকেন এ সংগঠনের সদস্যরা।

‘সংবাদ, সাংবাদিক ও সাংবাদিকতা এ তিনটি বিষয়ের সঙ্গে যখন ক্যাম্পাসের কোন শিক্ষার্থী যুক্ত থাকেন তখন সেই শিক্ষার্থী হয়ে ওঠেন অনন্য। বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নের সঙ্গে সঙ্গে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতায় নিজের জায়গা করার গল্প আমার। সাংবাদিকতার শুরুই হয় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির হাত ধরে।’ এক সন্ধ্যায় সমিতির কার্যালয়ে এভাবেই বলছিলেন সভাপতি জাহিদুল ইসলাম।

সাংবাদিক সমিতির পথচলার সময়গুলো সবসময় মসৃণ ছিল না। ভালো ও খারাপ পরিস্থিতির মাঝেই তো সাংবাদিকদের চলতে হয়। সংগঠনটির সদস্যদের ওপর কখনও এসেছে প্রশাসনের রক্তচক্ষু কিংবা ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের নির্যাতন। রক্তচক্ষু আর নির্যাতন কোনো কিছুই দমিয়ে রাখতে পারেনি সংগঠনের সদস্যদের। শত রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে এগিয়ে চলেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি। কথা হয় সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক আহসান হাবীবের সঙ্গে।

তিনি বলেন, অসঙ্গতি ও অন্যায্যতার বিরুদ্ধে এবং সত্য ও ন্যায়ের প্রকাশে নিজে জ্বলে যে মিটিমিটি আলো জ্বালিয়েছিলাম, তা আজ ক্রমোন্নতিরত আলোর মিছিলে রূপ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কুবিসাস-এর আলোর মশালবাহীদের নিরন্তর ভালোবাসা। আত্মিক কামনা, এ অভিযাত্রা অধিকতর সমৃদ্ধ হোক।