স্বপ্ন যাদের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

স্বপ্ন যাদের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

হাবিবুর রনি ১২:৪০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

print
স্বপ্ন যাদের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

দেশের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও কৃষিপ্রধান ৭টি বিশ্ববিদ্যালয় সমন্বিতভাবে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ৩০ নভেম্বর একযোগে ৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হবে। ভর্তি পরীক্ষায় ভালো করতে হলে সঠিক উপায়ে পড়াশোনা করতে হবে। গুচ্ছ পদ্ধতিতে অংশগ্রহণকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে ভর্তি প্রস্তুতি নিয়ে বিস্তারিত লিখেছেন হাবিবুর রনি

শিহাব খান
শিক্ষার্থী, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

রসায়ন শিক্ষার্থীদের মাঝে একটি ভীতির নাম। যদিও ভর্তি পরীক্ষায় ভালো ফলের জন্য এ বিষয়ের গুরুত্ব অনেক। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় রসায়নের মার্কসের ওপর তোমাদের সাফল্য অনেকটাই নির্ভর করছে। যারা বিক্রিয়া ভয় পাও, তারা প্রথমেই নামধারী বিক্রিয়াগুলোর তাপমাত্রা, চাপ, প্রভাবক পড়ে ফেলবে। এর সঙ্গে সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ধ্রুবকগুলোর নাম ও একক পড়বে। জৈব যৌগ থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রস্তুত প্রণালি রয়েছে, সেগুলো মনে রাখার চেষ্টা করবে। এছাড়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ যৌগ ও মৌলের (গ্রুপ-১, গ্রুপ-২) পারমাণবিক ভর, গলনাংক ও স্ফুটনাংক পড়বে। বায়ুম-লের বিভিন্ন স্তরের নাম, এদের তাপমাত্রা, দূরত্ব, বিভিন্ন গ্যাসের পরিমাণ মনে রাখবে। এছাড়াও বিভিন্ন প্রিজারভেটিসের নাম, এদের কাজ, পারমাণবিক মডেলের আবিষ্কারকের নাম ও সাল পড়তে হবে। সর্বোপরি রসায়নে ভালো করতে হলে অবশ্যই প্রতিটি বিষয় শেষ করার পর ওই বিষয়ের বিগত বছরের প্রশ্নগুলো সমাধান করবে, যা তোমাদের দক্ষতা ও আত্মবিশ্বাস দুই-ই বৃদ্ধি করবে।

 

ইমরান খান
শিক্ষার্থী, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

খাদ্য সংকটময় পৃথিবীতে মেধাবী শিক্ষার্থীরা ঝুঁকছে এখন কৃষি শিক্ষাতে। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য পরীক্ষায় মোটামুটি একটা নম্বর পেলেই চান্স পাওয়া খুব সহজ। এবার সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে একটু ভালো করতে পারলেই তুলনামূলক ভালো বিষয় পাওয়া সহজ হবে। তাই দেশের সেরা মেধাবীদের সঙ্গে পাল্লা দিতে শেষ সময়ে কৌশলগতভাবে প্রস্তুতি নিতে পারলে চান্স পাওয়া কোনো ব্যাপারই না। পদার্থ ও গণিত বিষয়ের ক্ষেত্রে একটু কৌশলে পড়তে হবে। পদার্থতে ২০টি ও গণিতে ২০টি করে নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন থাকবে। কৃষি বিষয়টা যেমন সহজ তেমনি ভর্তির সময় পদার্থ ও গণিতের অংকটাইপের নৈর্বক্তিকগুলোও অনেক সহজ হয়। প্রশ্নগুলো অধিকাংশই বোর্ড বইয়ের বেসিক ও ছোট সূত্রগুলো থেকে থাকে। পদার্থ ও গণিতের ছোট সূত্রগুলো অবশ্যই মুখস্থ রাখতে হবে। পদার্থে বিশেষ করে বিজ্ঞানীদের নাম ও সাল আয়ত্তে রাখতে হবে। পদার্থের ক্ষেত্রে তপন ও ইসহাক স্যারের মূল বইগুলো ভালো করে আয়ত্তে রাখবে।

দিপঙ্কর অধিকারী
শিক্ষার্থী, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

পরীক্ষায় পদার্থ, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও গণিতে মোটামুটি সবাই ভালো করে। কারণ প্রস্তুতির বেশিরভাগ সময়টাই কাটে এসব বিষয় নিয়ে, কেউ ইংরেজিতে তেমন জোর দেয় না। কিন্তু যারা একটু ইংরেজিতে ভালো করে, দিন শেষে তারাই এগিয়ে থাকে। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় এবার ইংরেজি বিষয় থেকে ১০ মার্কসের প্রশ্ন থাকবে। যার মধ্যে বেশিরভাগ প্রশ্ন আসে বেসিক গ্রামার থেকে। এর মধ্যে Right form of verb, sentence, Preposition, Narration, Voice change, Synonym & Antonym, Translation প্রতিটি অংশ থেকে ১-২ করে প্রশ্ন থাকতে পারে। তবে প্রতিটি অংশের ব্যতিক্রমগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ফরহাদ ইসলাম
শিক্ষার্থী, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

যারা মেডিকেলে প্রস্তুতি নেয় তাদের প্রায় ৮০ শতাংশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রস্তুতি হয়ে যায়।
জীববিজ্ঞানে সাধারণত দুটি অংশ থেকে মোট ৩০টি প্রশ্ন করা হয়। যার মধ্যে উদ্ভিদ বিজ্ঞান থেকে ১৫টি এবং প্রাণী বিজ্ঞান থেকে ১৫টি প্রশ্ন আসে। উদ্ভিদ বিজ্ঞান থেকে প্রথমে ছক, পার্থক্য, বৈশিষ্ট্য পড়তে হবে। প্রাণী বিজ্ঞানের মানবদেহের কঙ্কালতন্ত্র অধ্যায়টিতে বিভিন্ন হাড়ের নাম শর্টকাট পদ্ধতিতে মনে রাখতে পার।
ভালো নম্বর পেতে হলে উদ্ভিদ বিজ্ঞানের অনুজীব, নগ্নবীজী ও আবৃতবীজী উদ্ভিদ, উদ্ভিদ শারীরতত্ত্ব- এই অধ্যায়গুলো ভালোভাবে পড়তে হবে।
শেষে একটি কথাই বলব, পরিশ্রম করে যাও বুদ্ধিদীপ্তভাবে, সফলতা আসবেই।