রাঙামাটির পথে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

রাঙামাটির পথে

সিরাজুল মুস্তফা ১২:১২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৩, ২০১৯

print
রাঙামাটির পথে

পাহাড়িয়া এক্সপ্রেসের তিনটি বিশাল বিশাল বাস সকাল ৭টায় এসে কলেজ গেটে হাজির। আগে থেকেই আমরা প্রস্তুত ছিলাম। সবার হাতে একটি করে লাল রঙের টি-শার্ট, সঙ্গে একটি করে কাগজ ধরিয়ে দেওয়া হয়।

যেখানে আমাদের ভ্রমণের যাবতীয় নির্দেশনা দেওয়া ছিল। কোথায় যাব, কয়টায় কী করব, কয়টায় আসব, এসব নির্দেশনা। বাসগুলোতে প্রতিটি বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য নির্দিষ্ট আসন ঠিক করে দেওয়া হয়, সঙ্গে প্রতিটি গাড়িতে টিচারদের ভাগ করে বসানো হয়। সকাল ৮টায় বাস ছেড়ে যায়। গন্তব্য ছিল রবীন্দ্রনাথের গ্রাম ছাড়া ঐ রাঙামাটির দেশে। আহ! সবার চোখে-মুখে আনন্দের ঢেউ খেলছিল। দীর্ঘদিন পর মহসিন কলেজ বাংলা বিভাগ ট্যুর প্রোগ্রাম করতে পেরেছে। নেচে-গেয়ে আমরা সকাল ১১টার সময় পৌঁছে যাই রাঙামাটি রিজার্ভ বাজার। সেখানে আগে থেকে আমাদের লঞ্চ প্রস্তুত করা ছিল। বিশাল লঞ্চে উঠে আমরা কী খুশি!

অনেকেরই জীবনের প্রথম লঞ্চে চড়া। এটি ছিল জীবনের এক স্মরণীয় মুহূর্ত। লঞ্চে আমাদের স্যাররা সবাই মিলে গান করি সঙ্গে নাচি। বিভাগীয় প্রধান স্যার ছাত্রদের নিরাপত্তার স্বার্থে বারবার সতর্ক করছিলেন। যেন নাচানাচি না করি অধিক, এতে দুর্ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা যেন সেদিন বাঁধনহারা প্রাণ, আপনহারা প্রাণ। বিভাগের বড়-ছোট সবাই এক হয়ে নাচি আর গাই। এভাবে আমরা পৌঁছে যাই শুভলং ঝর্ণার কাছে।