আমরা জাগলে জাগবে দেশ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ | ৬ আষাঢ় ১৪২৬

স্যাক

আমরা জাগলে জাগবে দেশ

ইরফান রানা ১:৩৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ০৬, ২০১৯

print
আমরা জাগলে জাগবে দেশ

২০১৯ সালের প্রথম দিনটি ভালো কাজের মাধ্যমে স্মরণীয় করতে হাতে গ্লাভস, ঝাড়ু আর মুখে মাক্স পরে পরিষ্কার অভিযানে নামে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার কিছু তরুণ প্রাণ। উপজেলার অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র কাঁকড়া রেল ব্রিজ এলাকা পরিষ্কার করে তারা। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব চিরিরবন্দর (স্যাক) এ অভিযানের আয়োজন করে।’

উপজেলার অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র কাঁকড়া রেল ব্রিজ এলাকা। নদী, রেল ব্রিজ, আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে শত শত মানুষ প্রতিদিন ছুটে আসে এখানে। উপভোগ করে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। কিন্তু এ এলাকায় যত্রতত্র ফেলে যায় পলিথিন, কাগজের টুকরো। ফলে নষ্ট হয় এলাকার সৌন্দর্য। এ এলাকার মানুষের মাঝে সচেতনতা ও ডাস্টবিনের ব্যবহার বাড়ানোর জন্য স্যাক এ আয়োজন করে।

তাদের এ অভিযানে অংশ নেয় চিরিরবন্দরের বিশিষ্ট ফ্রিল্যান্সার বেলাল হোসেন, ফারহান করপোরেশনের মোরশেদ আলম জুন, কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার সৈয়দ মাহফুজ আহমেদ, ইঞ্জিনিয়ার রোকনুজ্জামান বুলু। স্যাকের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাবিবুর রহমান লাবু, বর্তমান কমিটির সভাপতি আক্তারুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক আল ফাহাদ আশিক, ত্রাণ ও দুর্যোগবিষয়ক সম্পাদক মোস্তাকিমসহ অর্ধশতাধিক সদস্য।

প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাবিবুর রহমান লাবু বলেন, ‘এলাকার সাধারণ জনগণে মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি, ডাস্টবিনের ব্যবহার বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব কোনো বর্ধমান শহরকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য একান্ত প্রয়োজন। আর মানুষকে সচেতন করাই এ কাজের মূল উদ্দেশ্য। এ কাজের জন্য প্রথমে শিক্ষিত প্রজন্মকেই সচেতন হতে হবে। আমরা জাগলে, জাগবে দেশ।’

স্যাকের সভাপতি আক্তারুজ্জামান বলেন, ‘ব্যক্তিপর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে আমাদের পরিবেশকে সুন্দর রাখতে পারি। পরিবেশকে সুন্দর রাখতে হলে সবার সচেতন হওয়ার বিকল্প নেই।’