অদম্য রিফার পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও

ঢাকা, শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

অদম্য রিফার পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও

এম.মনছুর আলম, চকরিয়া
🕐 ৩:৫৮ অপরাহ্ণ, মে ২২, ২০২২

অদম্য রিফার পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও

সদ্য প্রকাশিত মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন দরিদ্র পরিবারের অদম্য মেধাবী ছাত্রী সাদিয়া নাসরিন রিফা। মেডিকেলে ভর্তি ও পড়াশোনার খরচ নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় ছিল রিফার পরিবার। অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তার ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন। অবশেষে তার চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পূরণে মানবিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে এলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেপি দেওয়ানসহ সমাজের মানবিক সংগঠন ও বিত্তবানরা। অর্থাভাবে থামেনি অদম্য মেধাবী রিফা’র মেডিকেলে ভর্তি, এখন চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পূরণে রিফা।

স্থানীয় সাংবাদিক এম.মনছুর আলম জানান, গত ৯ মে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, দৈনিক খোলা কাগজসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে দরিদ্র কৃষকের কন্যা অদম্য মেধাবী ছাত্রী রিফার মেডিকেলে ভর্তির অনিশ্চিয়তা বিষয়ে প্রতিবেদন এবং একটি ভিডিও সাক্ষাৎকার প্রচারিত হয়।

বিষয়টি ভাইরাল হয়ে পড়লে প্রচারের আধ ঘন্টার ভেতরে নজরে আসে ইউএনও জেপি দেওয়ানের। এছাড়াও স্বেচ্চাসেবী মানবিক সংগঠন জাফর-নিলুফা ফাউন্ডেশন ও পিস ফাইন্ডারের উদ্যোক্তা তরুণ সমাজকর্মী আদনান রামীমের নজরে আসে যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের পোষ্ট ও অনলাইন নিউজটি। এরপর ওইদিন রাতেই মেধাবী ছাত্রী রিফা’র বাড়িতে গিয়ে মেডিকেলে ভর্তির পুরো দায়িত্ব নিয়ে পাশে দাঁড়ালেন তরুণ মানবিক যোদ্ধা আদনান রামীম। তখন আবেগাপ্লুত হয়ে কেঁদে ফেলেন রিফা। গত ১২ মে অদম্য মেধাবী ছাত্রী রিফা রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন।
এদিকে, মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেপি দেওয়ান নিজ কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে অদম্য মেধাবী ছাত্রী রিফা’র হাতে ১০ হাজার টাকা মানবিক সহায়তা হিসেবে তুলে দেন তিনি। পাশাপাশি পরবর্তীতে পড়াশোনার জন্য সবধরণের সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছেন ইউএনও। কৃতজ্ঞতাস্বরূপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ধন্যবাদ জানাতেও ভুলেননি মেধাবী ছাত্রী রিফা।

রিফার মা শামসুন নাহার এ প্রতিবেদককে বলেন, আমার মেয়ে রিফার মেডিকেলে ভর্তি এবং পড়া-লেখা করতে তার আশা পূরণ যারা সাহায্য সহযোগীতা করেছেন আল্লাহ তাদের মঙ্গল করবেন। আল্লাহর ইচ্ছায় এবং সকলের সহায়তায় সে মেডিকেলে ভর্তি হতে পেরেছে এটাই আমার সৌভাগ্যে। অর্থের অভাবে আমার মেয়ের স্বপ্ন যেন অসম্পূর্ণ না থেকে যায়। তার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সমাজের বিত্তবানদের কাছে সার্বিক সহযোগীতা কামনা করছি।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাফর-নিলুফা ফাউন্ডেশন ও পিস ফাইন্ডারের কর্ণধার তরুণ সমাজ সেবক আদনান রামীম জানান, মেডিকেলে চান্স পাওয়া মেধাবী ছাত্রী রিফাকে নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনটি দেখে তার ভর্তির জন্য টাকা দেওয়া হয়েছে। আগামীতে আরো প্রয়োজন হলে তাকে সহায়তা করা হবে। এছাড়াও উপজেলার বেশ কয়েকজন অদম্য মেধাবী শিক্ষার্থীকে সহায়তার জন্য তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে তা দেওয়া হবে। রিফা’র মেডিকেলে পড়া-লেখার বিষয়ে অর্থের জন্য কোনো ধরণের বাধা হবে না, মেডিকেল থেকে পড়া-লেখা শেষ না হওয়া পর্যন্ত তার পাশে থাকবে বলে তিনি জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেপি দেওয়ান বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, অনলাইন নিউজ ও বিভিন্ন পত্রিকায় দরিদ্র কৃষক বাবার মেধাবী ছাত্রী রিফার মেডিকেলে ভর্তির অনিশ্চয়তার খবরটা পেয়েছি। ইতিমধ্যে সে সমাজের বিত্তবানদের সহায়তায় রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজে ভর্তি হয়েছেন।

 
Electronic Paper