স্মৃতি আছে, গাছটি নেই

ঢাকা, শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

স্মৃতি আছে, গাছটি নেই

ঢাবি প্রতিনিধি
🕐 ৩:০২ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০২২

স্মৃতি আছে, গাছটি নেই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টারদা’ সূর্যসেন হলের ফটকের সামনের কৃষ্ণচূড়া গাছ, হয়তো অনেক স্মৃতি নিয়ে টিকে ছিল। হয়তো এ কৃষ্ণচূড়া গাছটিকে নিয়ে ছিল সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের নানান স্মৃতি। সেই স্মৃতিগুলো হয়তো স্মৃতিই থাকবে, কিন্তু স্মৃতি ঘিরে সেই গাছটি আর নেই! জীবাণুর সংক্রমণে আক্রান্ত সেই কৃষ্ণচূড়াগাছটি কাটা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, সেই জায়গাতে নতুন গাছের চারা রোপণ করা হবে।

গাছটি কাটছেন এমন কয়েকজন শ্রমিকের সঙ্গে খোলা কাগজের কথা হলে তারা জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে গাছটি কাটা হচ্ছে। ঢাবির গাছপালা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে আছে আরবরি কালচার সেন্টার। মাস্টার দা’ সূর্যসেন হলের প্রাধ্যক্ষের কাছ থেকে গাছটির বিষয়ে একটি জরুরি চিঠি পেয়েছেন বলে জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের গাছপালার রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা আরবরি কালচার সেন্টারের পরিচালক মিহির লাল সাহা। তিনি বলেন, সূর্যসেন হলের ফটকের সামনের কৃষ্ণচূড়াগাছটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এটি কেটে ফেলা হচ্ছে। ওই স্থানে নতুন গাছের চারা রোপণ করা হবে।

গত চার বছরে যে ১৫টি গাছ শিকড়সহ উপড়ে পড়েছে, সেগুলোর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার ও হাকিম চত্বর এলাকায় পাঁচটি, মল চত্বরে চারটি, ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের পাশে দুটি ও কার্জন হল এলাকায় একাধিক গাছ রয়েছে। সর্বশেষ গত ২৭ ও ৩০ এপ্রিল মল চত্বরে উপড়ে পড়ে যথাক্রমে একটি কৃষ্ণচূড়া ও একটি আকাশমণিগাছ।
অধ্যাপক মিহির লাল সাহা আরো বলেন, ক্যাম্পাসে আরও কয়েকটি ঝুঁকিপূর্ণ গাছ শনাক্ত করা হয়েছে। ক্যাম্পাসের যেখানেই গাছ কাটা হবে, সেখানেই নতুন গাছের চারা রোপণ করা হবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি।

 
Electronic Paper