বাদলের মৃত্যু বড় ক্ষতি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বাদলের মৃত্যু বড় ক্ষতি

খোলা কাগজ ডেস্ক ৮:৪৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৭, ২০১৯

print
বাদলের মৃত্যু বড় ক্ষতি

মঈনউদ্দীন খান বাদলকে আমি চিনি নির্বাচনী পোস্টার থেকে। বোয়ালখালী আমাদের পাশের আসন। জাসদের মশাল মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছিলেন। আব্বুকে জিজ্ঞেস করলাম, জাসদের বড় নেতা লোকটা কে? আমার বাবা ঘোরতর জাসদবিরোধী। বাংলাদেশের সব অনিষ্টের মূলে দেখেন জাসদকে। আমাকেও সেভাবে বুঝিয়েছেন। আমি যখন জাসদ ভগ্নাংশের এক পক্ষের রাজনীতির অনুগত হয়েছি আব্বু খুব চটেছিলেন।

আমার বাবার ইন্টেলেকচুয়াল কোয়ারি নেই। উনি অভিজ্ঞতা দিয়ে তার মতো করে বোঝেন। আমাকে একগাদা জাসদবিরোধী কথা শুনিয়ে দিয়েছিলেন। তবে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বাদল যে অগ্রগণ্য তা তার কাছ থেকেই শুনেছি। তো আমার এই হেন জাসদবিরোধী বাবাকে সকালে যখন বললাম বাদল মারা গেছেন তিনি বিষণ্ন হলেন। তো আওয়ামী মন কি রূপান্তরিত হয়েছে? নাহ।

মঈনউদ্দীন খান বাদল নিজেই পার্লামেন্টে বলেছিলেন, জাসদ ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করছে। গত এগারো বছরে বাদল হয়ে উঠেছিলেন মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষের এক অনমনীয় কণ্ঠস্বর। আওয়ামী লীগ নেতারা তার মতো যুক্তি দিয়ে আওয়ামী লীগকে ডিফেন্ড করতে পারেননি। বাদলের মৃত্যু তাই আওয়ামী লীগের জন্য বড় ক্ষতি। তার বুদ্ধিদীপ্ত ও রাজনৈতিক বচন মিস করবে বাংলাদেশের মানুষ। জাসদ কি তবে যৌবনের অপচয়?

গাজী নাসিরুদ্দিন আহমেদ
সাংবাদিক