অকৃতজ্ঞ বিএনপি

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬

অকৃতজ্ঞ বিএনপি

খোলা কাগজ ডেস্ক ৯:১৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৫, ২০১৯

print
অকৃতজ্ঞ বিএনপি

বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে তুলনামূলক বেশি অকৃতজ্ঞ দল হচ্ছে বিএনপি। সম্ভবত সবচেয়ে বেশি স্বার্থপর দলও হচ্ছে এই বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল। এরা কোনো কষ্ট এবং ত্যাগ-তিতিক্ষা ছাড়াই ক্ষমতায় আসতে চায়, এবং দেশ ও জনগণকে কিছু না দিয়েই সব কিছু ভোগ করতে চায়। অন্যের কাঁধে বন্দুক রেখে শিকার করতে চায়। জনগণও বিকল্প না পেয়ে বার বার ক্ষমতায় বসিয়েছে অকৃতজ্ঞ ও স্বার্থপর এই দলটিকে।

বিএনপির অকৃতজ্ঞতার একটি জ্বলন্ত উদাহরণ হচ্ছে বিচারপতি আবদুস সাত্তার। বিচারপতি সাত্তার হচ্ছেন বিএনপির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। জিয়াউর রহমানের পরে এবং খালেদা জিয়ার আগে দলটির চেয়ারম্যান ছিলেন। সবচেয়ে দুঃসময়ে এই দলের হাল ধরেছিলেন। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ছিলেন দেশের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট। ৮০’র দশকে বিএনপিকে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করেছিলেন। গৃহবধূ খালেদা জিয়াকে রাজনীতিতে এনে দলের চেয়ারপারসন বানিয়েছিলেন।

দলটির অন্যতম এই প্রতিষ্ঠাতা, সাবেক চেয়ারম্যান, দেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি এবং ১৯৭০ সালের নির্বাচনের সময়ে দেশের প্রধান নির্বাচন কমিশনার বিচারপতি আবদুস সাত্তারকে ভুলে গেছে বিএনপি। তাকে একটু স্মরণ করার প্রয়োজনও মনে করে না খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের দল। শেষ কবে স্মরণ করেছিল, সেটা আমাদের জানা নেই। আজ (গতকাল) বিচারপতি আবদুস সাত্তারের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৮৫ সালের এই দিনে মারা যান দেশের এই অবিসংবাদিত রাজনীতিবিদ। দিনটি উপলক্ষে বিএনপির এমনকি ছোট্ট কোনো আয়োজন আছে কি? মহাসচিব বা অন্য কারও পক্ষ থেকে কোনো বাণী আছে কি? নাই। নাই। নাই।

বিচারপতি আবদুস সাত্তারের মতো এ দেশের আরেক অবিসংবাদিত রাজনীতিবিদ মশিয়ুর রহমান জাদু মিয়াকেও ভুলে গেছে বিএনপি। জাদু মিয়া বিএনপির শুধু অন্যতম প্রতিষ্ঠাতাই নন, এই দলটির প্রতিষ্ঠায় তার ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। জিয়াউর রহমান সামনে ছিলেন, কিন্তু নেপথ্যে থেকে দল প্রতিষ্ঠা ও গুছিয়ে আনার সব কাজ করেছেন এই জাদু মিয়া।

বিএনপির যে ধানের শীষ প্রতীক-এটাও যাদু মিয়ার কারণে পাওয়া। কিছুদিন আগে মারা যান সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাস। এ দেশে একটি ক্যু কিন্তু ব্যর্থ করে দিয়েছিলেন এই আবদুর রহমান বিশ্বাস। সেদিন সেই সামরিক ক্যু ব্যর্থ করে দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিলেন দেশের সে সময়ের প্রেসিডেন্ট। সেই আবদুর রহমান বিশ্বাস মারা গেলেন নীরবে-নিভৃতে, এই তো কিছু দিন আগে। বিএনপি কি তার খবর রেখেছিল মারা যাওয়ার সময় বা তার আগে। আবদুর রহমান বিশ্বাসও আজ হারিয়ে গেছেন বিএনপির স্মরণ থেকে।

অকৃতজ্ঞ ও স্বার্থপর বিএনপি বিচারপতি সাত্তার কিংবা যাদু মিয়াকে স্মরণ করে না। আর করবেই না কী করে? বুলু-টুলুদের কথায় যে দল ১১ জনকে সুপারসিড করে মঈন ইউ আহমদকে সেনাপ্রধান করে, তারা তো তাদের লোককে স্মরণ করবে না-এটাই স্বাভাবিক।

এহসানুল হক জসীম
সাংবাদিক